অনলাইনে শিশুর সুরক্ষায় ফেসবুকের পরামর্শ

আপডেট: অক্টোবর ২৪, ২০১৯, ১:১৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ডিজিটাল বিশ্বে ইন্টারনেটে আগ্রহী হয়ে পড়ছে আমাদের শিশুরাও। ডিজিটাল দুনিয়ার বিপদ থেকে তাদের সুরক্ষিত রাখতে অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বেশ কিছু পরামর্শ দিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।
ফেসবুকের কর্তৃপক্ষের মতে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রবেশের আগে, অল্প বয়সেই শিশুদের সাথে প্রযুক্তি নিয়ে আলোচনা শুরু করুন। গবেষণায় দেখা যায়, ছয় বছর বয়সের অনেক শিশুর কাছে স্মার্টফোন বা ট্যাবলেট আছে।
পোস্ট নিয়ে সচেতন করুন : ফেসবুকে কিছু শেয়ার করার আগে তাদের কাছ থেকে জেনে নিন এই পোস্ট কোনো ভুল ব্যাখ্যা দিচ্ছে কি না, বা কাউকে অপমান বা আঘাত করছে কি না।
একজন আদর্শ মডেল হতে চেষ্টা করুন : প্রবাদে বলা হয়, ‘তুমি যা বলবে তাই কর, যা করবে না তা বলো না’- কথাটি অনলাইন এবং অফলাইন উভয় ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। আপনি যদি আপনার বাচ্চাকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারের বিষয়ে (রাত ১০টার পর কোনো মেসেজ পাঠাতে পারবে না) সময় ঠিক করে দিতে চান, তাহলে আপনাকেও তা মেনে চলতে হবে।
গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তগুলো চিহ্নিত করে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া : উদাহরণস্বরূপ, আপনার বাচ্চাকে যখন প্রথম মোবাইল ফোন দেবেন, তখন নিয়মগুলো শুরু থেকেই ঠিক করে দেয়া ভালো। আপনার সন্তান যখন ফেসবুক এবং অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যোগ দিবে তখন নিরাপদ শেয়ারিং নিয়ে তার সাথে খোলামেলা আলোচনা করুন। ব্যস্ত রাস্তায় চলার পথে মোবাইল ব্যবহার না করার গুরুত্ব তুলে ধরুন।
নিয়ন্ত্রণ শেখান : ফেসবুকের যেকোনো পোস্টের ওপরে ডানপাশে যে তিনটি ডট আছে তাতে ক্লিক করে আপনার বাচ্চারা কিভাবে তাদের নিউজ ফিড নিয়ন্ত্রণ করতে পারে সে বিষয়টি তাদের দেখিয়ে দিন।
* তারা যদি কোনো স্টোরি পছন্দ না করে তাহলে তা হাইড করতে পারে।
* তারা যদি নির্দিষ্ট কোনো ব্যক্তির পোস্ট দেখতে না চায়, তারা সে ব্যক্তিকে আনফলো বা স্নোজ করতে পারে।
* হয়রানিমূলক কোনো পোস্ট আসলে তারা সেটির বিরুদ্ধে ফিডব্যাক দিতে পারে বা রিপোর্টও করতে পারে।