অনুমোদন ছাড়াই ইন্টারনেটের দাম বাড়ালো গ্রামীণফোন

আপডেট: নভেম্বর ১৪, ২০১৯, ১২:৫৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির অনুমোদন না নিয়ে ইন্টারনেট (ডাটা) প্যাকেজের দাম বাড়িয়েছে গ্রামীণফোন। অপারেটরটি মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) গ্রাহকদের এসএমএস পাঠিয়ে প্যাকেজের নতুন দামের কথা জানানো শুরু করেছে। যদিও এসএমএস-এ উল্লেখ করা হয়নি প্যাকেজটির আগের দাম কত ছিল। গ্রামীণফোন ব্যবহারকারীরা এসএমএস পেয়ে বিষয়টি জানতে পেরেছেন বলে একাধিক ব্যবহারকারী এ প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বাংলা ট্রিবিউনের কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, গ্রামীণফোন এটা করতে পারে না। অপারেটরটির নতুন প্যাকেজ চালুর বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এটা করলে অপারেটরটি বিটিআরসির নির্দেশনা ভঙ্গ করবে।
মোস্তাফা জব্বার আবারও বলেন, ‘গ্রামীণফোন এ কাজ করতে পারে না, করার কোনও কারণও নেই। কারণ, আমরা তাদের কোনও এনওসি দেইনি।’ ডাটা প্যাক, বান্ডলের দাম বাড়ানোর এসএমএসের বিষয়টি তার নজরে এসেছে বলেও তিনি জানান। বিষয়টি নিয়ে এরইমধ্যে বিটিআরসি চেয়ারম্যানের সঙ্গে আলাপ করেছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা ১৪ নভেম্বরের জন্য অপেক্ষা করছি। দিনটা পার হলে আমরা গ্রামীণফোনের বিরুদ্ধে অ্যাকশনে যাবো।’
প্রসঙ্গত, বিটিআরসি গ্রামীণফোন ও রবির এনওসি (অনাপত্তিপত্র) বন্ধ রেখেছে। ফলে গ্রামীণফোন নতুন কোনও প্যাকেজ বিটিআরসি থেকে অনুমোদন করাতে পারবে না। এমনকি পুরনো কোনও প্যাকেজও নতুন ডিজাইন করে বাজারে ছাড়তে পারবে না।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিটিআরসি চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক মঙ্গলবার রাতে (১২ নভেম্বর ) বলেন, ‘কাল (বুধবার) অফিসে যাই। তারপর বিচার বিশ্লেষণ করে দেখি কেন ওরা এটা করেছে। যদি এ ধরনের কিছু গ্রামীণফোন করে থাকে তাহলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নেবো এবং কঠিন অ্যাকশনে যাবো।’ তিনি গ্রামীণফোনের ডাটার দাম বাড়ানোর বিষয়টি শুনেছেন বলে জানান।
গ্রামীণফোনের এসএমএসে বলা হয়েছে, ‘প্রিয় গ্রাহক, ৩০ দিন মেয়াদের ১.৫ জিবি ইন্টারনেট প্যাকের দাম ১২ই নভেম্বর ২০১৯ থেকে ২৪৭ টাকা। অটো-রিনিউয়াল বন্ধ করতে ডায়াল করুন *১২১*৩০৪৩#।’ জানা গেছে, এই প্যাকটির আগে দাম ছিল ২২৯ টাকা, মেয়াদ ছিল ২৮ দিন।
এ বিষয়ে গ্রামীণফোনের বক্তব্য জানার জন্য জনসংযোগ বিভাগে যোগাযোগ করা হলে বাংলা ট্রিবিউনকে জানানো হয়, গ্রামীণফোন কাল (বুধবার) বিবৃতি দেবে।