অনুমোদিত মূলধন বাড়াবে এনসিসি ব্যাংক

আপডেট: অক্টোবর ৮, ২০১৮, ১২:১০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


অনুমোদিত মূলধন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে এনসিসি ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
জানা যায়, বর্তমানে ব্যাংকটির অনুমোদিত মূলধন এক হাজার কোটি টাকা। এটি বাড়িয়ে দুই হাজার কোটি টাকায় উন্নীত করা হবে।
ব্যাংকটি জানিয়েছে, অনুমোদিত মূলধন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে হলে বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমতি প্রয়োজন হবে। এছাড়াও সংশোধন করতে হবে ব্যাংকের সংঘস্মারক ও সংঘবিধি। এ লক্ষ্যে আগামী ২৫ নভেম্বর বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে এনসিসি ব্যাংক। ওই দিন সকাল ১১টায় ইস্কাটনের পুলিশ কনভেনশন সেন্টারে সভাটি অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০ অক্টোবর।
হিসাব বছরের প্রথমার্ধে (জানুয়ারি-জুন) ব্যাংক কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা, যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ৮০ পয়সা। দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) ৬১ পয়সা ইপিএস দেখিয়েছে কোম্পানিটি, যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৪২ পয়সা। ৩০ জুন ২০১৮ কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়ায় ২০ টাকা ৩৮ পয়সায়
২০১৭ সালের সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে ১৩ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছ ব্যাংকটি। গেল বছর কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৯ পয়সা। ৩১ ডিসেম্বর ব্যাংকটির এনএভিপিএস দাঁড়ায় ১৯ টাকা ৪৬ পয়সায়।
২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য ১৬ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয় এনসিসি ব্যাংক। সে হিসাব বছরে এর ইপিএস হয় ২ টাকা ৩৫ পয়সা। ২০১৫ হিসাব বছরের জন্য ১২ দশমিক ৭৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ পান এ ব্যাংকের শেয়ারহোল্ডাররা।
২০০০ সালে শেয়ারবাজারে আসা এনসিসি ব্যাংকের পরিশোধিত মূলধন ৮৮৩ কোটি ২১ লাখ ৮০ হাজার টাকা। রিজার্ভ ৮৩৫ কোটি ২৯ লাখ টাকা। কোম্পানির মোট শেয়ারের ৩৯ দশমিক ১৪ শতাংশ এর উদ্যোক্তা-পরিচালকদের কাছে, প্রতিষ্ঠান ১৮ দশমিক ১৩, বিদেশী বিনিয়োগকারী ১ দশমিক ৪৩ ও বাকি ৪১ দশমিক ৩০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে। তথ্যসূত্র: বণিক বার্তা