আক্কেলপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৯, ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ

আক্কেলপুর প্রতিনিধি


জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার রুকিন্দীপুর ইউনিয়নের জামালগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীকে টিসি দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রানা কুমার সরকার ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ওই বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী জামালগঞ্জ এলাকার রকি নামের এক ছেলের সঙ্গে প্রেমের সুবাদে গত ৪ সেপ্টেম্বর দুপর ১ টায় টিফিনের সময় বাইরে যেয়ে দীর্ঘ সময়ে স্কুলে না ফিরলে বিষয়টি স্কুলের শিক্ষকদের নজরে আসে।
পরে ওই ছাত্রীর পরিবারকে স্কুলে ডেকে তাদের মেয়েকে টিসি দিয়ে স্কুল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিলে ওই দিন সন্ধায় রকি বিদ্যালয়ের অফিস সহকারীকে টিসি দিতে বারণ করে। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে মারপিট হয়। এতে অফিস সহকারী গুরুতর আহত হলে তাকে আক্কেলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।
পরে এর প্রতিবাদে গত বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সকল সদস্য, শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে অফিস সহকারীকে মারধরের ঘটনার প্রতিবাদে মিছিল বের করলে রকির সহযোগিরা মিছিলে অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় দুর্বৃত্তদের হামলায় এক পুলিশ সদস্য ও বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সদস্য ও ছাত্রছাত্রীসহ ১০ থেকে ১২ জন আহত হন।
এ বিষয়ে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি, আক্কেলপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর জানান, রুকিন্দীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আহসান কবির এ্যাপ্লব ও জামালগঞ্জের এক স্বার্থান্বেষী মহল বিদ্যালয়ের উন্নয়নের ক্ষেত্রে বারবার বাধাঁর সৃষ্টি করেছে।
অপরদিকে রুকিন্দীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আহসান করিব এ্যাপ্লব জানান, যারা এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত যারা এ মিছিলে হামলা করেছে তারা আমার নিয়ন্ত্রিত কোন ব্যক্তি বা লোক নয়, আমার জানা মতে যারা এ মিছিলে বাধাঁ সৃষ্টি করেছে তারা এ বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের অভিভাবক বলে তিনি জানান।
পরে আক্কেলপুর থানার (ওসি তদন্ত) আবু রায়হান জানান, আমি মারপিটের সংবাদ পেয়ে সঙ্গীয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এ বিষয়ে এখনো থানায় মামলার প্রস্তুতি চলমান রয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ