আগামি ২ জুলাইয়ের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ সব ওষুধ ধ্বংস করা হবে : ডিজি

আপডেট: জুন ২৭, ২০১৯, ১:০৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


মডেল ফার্মেসির ফলক উম্মোচন করছেন ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের ডিজি মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান-সোনার দেশ

আগামি ২ জুলাইয়ের মধ্যে সমস্ত মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস করা হবে বলে জানিয়েছেন ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় নগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে অবস্থিত ‘দেশ ফার্মা’ ফার্মেসিকে মডেল ফার্মেসি হিসেবে উদ্বোধনের পর গণমাধ্যমকর্মীদের একথা বলেন।
এসময় মাহবুবুর রহমান বলেন, ২ জুলাইয়ের মধ্যে সমস্ত মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংসের জন্য ইতোমধ্যেই কাজ শুরু করেছে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর। তারা সমস্ত ড্রাগিস্ট অ্যান্ড কেমিস্টদের সঙ্গে এ বিষয়ে মতবিনিময় করেছেন। ফার্মেসিগুলোকে বলা হয়েছে, ২ জুলাইয়ের মধ্যে সব মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধগুলো একত্রে সংগ্রহ করে যে কোম্পানির ওষুধ সেই কোম্পানিকে দিয়ে দিতে হবে। তারপর সেই কোম্পানি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়ামানুযায়ী ওষুধগুলো সংগ্রহ করে সব ধ্বংস করবে। ধ্বংস করে সেই অনুযায়ী রিপোর্ট প্রদান করতে হবে। এরপর আমরা ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের পক্ষ থেকে ফার্মেসিগুলো মনিটরিং করবো।
বাংলাদেশ ফার্মেসি মডেল ইনিসিয়েটিভ (বিপিএমআই) এর পাইলট প্রকল্প’র আওতায় গতকাল নগরীতে মোট সাতটি ফার্মেসিকে ‘মডেল মেডিসিন শপ’ হিসেবে উদ্বোধন করেন ডিজি।
এসময় মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান আরো জানান, ভেজাল ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ব্যবহার করতে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে অধিদপ্তর কাজ করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় ঢাকাসহ সারাদেশে এ কার্যক্রম চালু করা হয়েছে। এসব ফার্মেসি থেকে মানুষ সহজেই সকল প্রকার ওষুধ পাবে বলেও জানান তিনি।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) রুহুল আমীন, অধিদফতরের সহকারী পরিচালক মো. সালাউদ্দীন, রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের স্থানীয় সহকারী পরিচালক মির্জা আনোয়ারুল বাসেদ, বগুড়ার ঔষধ তত্ত্বাবধায়ক আহসান হাবীব, পাবনার ঔষধ তত্ত্বাবধায়ক কেএম মুহাসীনিন মাহবুব প্রমুখ।