আট বছরে দেশে সাড়ে তিন কোটি মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে : প্রতিমন্ত্রী পলক

আপডেট: আগস্ট ১৩, ২০১৭, ১২:২৪ পূর্বাহ্ণ

সিংড়া প্রতিনিধি


প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা গত সাড়ে আট বছরে দেশে সাড়ে তিন কোটি মানুষের কর্মসংস্থানের সৃষ্টি করেছেন। তার এই উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে আবারও আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনতে হবে। জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসমুক্ত দেশ গড়তে জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা রেখে নৌকায় ভোট প্রদানের আহবান জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।
গতকাল শনিবার দুপুরে নাটোরের সিংড়া উপজেলা হলরুমে আন্তর্জাতিক যুব দিবসের এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহবান জানান।
সিংড়ার উন্নয়ন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা ২২৩ কোটি টাকা ব্যয়ে সিংড়ায় হাইটেক পার্ক নির্মাণের অনুমোদন দিয়েছেন। যেখানে ২০ হাজার ছেলে-মেয়ের কর্মসংস্থান হবে। ১৫৪ কোটি টাকা ব্যয়ে আইটি পার্ক ও হাইটেকপার্ক এবং ৩৭ কোটি টাকা ব্যয়ে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সেন্টার নির্মাণের অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রায় ৩২ কোটি টাকা ব্যয়ে টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ নির্মাণ করা হবে।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, সিংড়া হবে উত্তরবঙ্গের ডিজিটাল ইকোনিমিক্যাল হাব। যেখানে দেশি বিদেশি কোম্পানিরা আসবে। এতে শিক্ষিত বেকার যুবক ও তরুণীদের আত্মকর্মসংস্থানের পথ সুগম হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে আবারও আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনতে হবে।
এসময় প্রতিমন্ত্রী ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির আওতায় ৯৬১ জন উপকারভোগির মাঝে সঞ্চয়ী চেক, ট্রেনিং সনদ ও অভিজ্ঞতা সনদ বিতরণ করেন।
ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুশফিকুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ওহিদুর রহমান শেখ, পৌর মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম, ট্রেনিংয়ে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থী সুবর্ণা খাতুন, আবদুল মান্নান, আজমল হোসেন প্রমুখ।
এসময় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী ও বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে সকাল ১১টায় উপজেলার ৪০৬ জনকে বয়স্ক ভাতা, ৮৩ জনকে বিধবা ভাতা, ২৫ হরিজনকে বিশেষ ভাতা ও চার জন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষসহ মোট ৯৪৮ জন ভাতা ভোগীকে ৬১ লাখ টাকা ৭৪ হাজার টাকার চেক বিতরণ করেন তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী। এছাড়া সিংড়া উপজেলার চারটি ইউনিয়ন ভূমি অফিসকে ডিজিটালাইজ এবং সেবার মান দ্রুত করার লক্ষ্যে ল্যাপটপ, প্রিন্টার, স্ক্যানার প্রদান করেন। এসময় প্রতিমন্ত্রী দুর্ঘটনায় আহত ব্যক্তিদের অনুদানের চেক বিতরণ করেন।