আফগান ক্রিকেটারদের পায়ে শিকল!

আপডেট: এপ্রিল ১৬, ২০১৮, ১:০৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


মোহাম্মদ শাহজাদকে নিয়ে একরকম হ্যাপাতেই আছে আফগানিস্তান। বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান। ওপেনার। উইকেটকিপার হিসেবে চমৎকার। একের মধ্যে দুই। কিন্তু তাকে কোনোভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখা যায় না। একের পর এক ঝামেলা তার জীবনে আছেই। এবারও নিয়ম ভেঙেছেন। এবং তাকে পাকাপাকিভাবে আফগানিস্তানে থাকার নির্দেশ দিয়েছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড এসিবি। সেই সাথে আছে জরিমানা।
যুদ্ধবিদ্ধস্ত আফগানিস্তানে তাদের ক্রিকেটারদের বেশিরভাগ থাকেন না। আগে পরিবেশ ছিল না। আর এখন নিজেদের আবাস ভিন্ন জায়গায় গড়ে উঠেছে। কিন্তু আইসিসির পূর্ণ সদস্য হয়ে যাওয়া আফগানিস্তানের বোর্ড আর এসব চায় না। ক্রিকেটারদের হাতের নাগালে চায় সবসময়। শাহজাদ থাকেন পাকিস্তানের পেশোয়ারে। সেখানেই স্থানীয় একটি টুর্নামেন্টে খেলেছেন। কিন্তু নিজের বোর্ডের অনুমতি নেওয়ার প্রয়োজন বোধ করেননি। ৪০০০ ডলার জরিমানা তাই এখন গুনতে হচ্ছে তাকে। সাথে তাকে বলে দেওয়া হয়েছে, আফগানিস্তানে স্থায়ীভাবে না থাকলে কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ পড়ার ঝুঁকিতে পড়বেন।
এই সপ্তাহেই এসিবি তাদের কঠোর নতুন নীতি ঘোষণা করেছে। আফগানিস্তানের বাইরে থাকা সব খেলোয়াড়কে দেশে ফিরে সেখানেই থাকতে এক মাসের আল্টিমেটাম দিয়েছে। পেশোয়ার আফগানিস্তানের বর্ডারের কাছাকাছি পাকিস্তানের শহর। অনেক আফগান ক্রিকেটার ওখানে রিফিউজি ক্যাম্পে থেকে খেলা শিখেছেন। নাম কামিয়েছেন। ওখানেই বিয়ে করেছেন। সংসার পেতেছেন। শাহজাদও পেশোয়ারের এক নারীকে বিয়ে করেছেন। পাকিস্তানেই তাই খেলার বাইরের সময় কাটে তার।
এসিবি চেয়ারম্যান আতিফ মাশাল হুশিয়ারী দিয়ে জানিয়েছেন, ‘অনুমতি ছাড়া কোনো খেলোয়াড় বিদেশে যেতে পারবে না। যারা দেশের বাইরে থাকে তাদের এক মাসের মধ্যে পরিবার নিয়ে আফগানিস্তানে এসে বসবাস করার নোটিশ দেওয়া হয়েছে। তা না হলে ক্রিকেট বোর্ড তাদের সাথে চুক্তি বাতিল করবে।’ ৩০ বছরের শাহজাদ এসিবির কোড অব কন্ডাক্ট ভেঙেছেন পেশোয়ারের লোকাল টুর্নামেন্টে অনুমতি ছাড়া খেলে। এসিবি চেয়ারম্যান তার ব্যাপারে বলেছেন, ‘কোনো অনাপত্তিপত্র ছাড়া সে ক্লাব পর্যায়ের টুর্নামেন্টে খেলেছে। এটা এসিবির কোড অব কন্ডাক্টের বিরুদ্ধে।’
শাহজাদ পুরো ২০১৭ সাল নিষেধাজ্ঞায় কাটিয়েছেন। আইসিসি তাকে ডোপ টেস্টে ধরা পড়ায় শাস্তি দিয়েছিল। এরপর তিনি ফিরেছেন এই বছরের ১৭ জানুয়ারি। জিম্বাবুয়েতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে খেলেছেন। ফাইনালের ম্যান অব দ্য ম্যাচও হয়েছিলেন। টুর্নামেন্টের মাঝেও সাসপেনশনে পড়েছিলেন। সূত্র : ক্রিকইনফো।

Don`t copy text!