ঈদে ঘর সাজানোর উপকরণ কিনতে ব্যস্ত ক্রেতারা

আপডেট: জুন ১৩, ২০১৮, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ

রওনক আরা জেসমীন


ঈদের দিনটিতে যেন শুধু নিজেকেই নয়, ঘরটিকেও নতুন সাজে সাজাতে চান সবাই। ঘরের সাজে আনতে চান পরিবর্তন, নতুনত্ব। দিতে চান উৎসবের আমেজ। আর এই নতুনত্বের আমেজ এনে দিতে পারে বাহারি রঙ ও ডিজাইনের জানালা-দরজার পর্দা, কুশন কভার, সোফার কভার, পর্দা, কার্পেট, বেড কভার ইত্যাদি।
বাহারি রঙ ও ডিজাইনের পর্দা ঘরের দৃশ্যপটই বদলে দেয় আবার বিছানার চাদর দেখতে ভালো না হলে ঘরের সৌন্দর্যটা যেন ঠিক ফুটে উঠে না। অন্যদিকে কুশন এখন শুধু আরামের বস্তু নয়। ঘর সাজানোরও অন্যতম উপকরণ যা ঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে।
পরিপাটি ও নান্দনিকতার সঙ্গে ঘর সাজাতে তাই ঈদের কেনাকাটার শেষ পর্যায়ে এখন ক্রেতারা এসব উপকরণ কিনতে ব্যস্ত।
রাজশাহী শহরের বিভিন্ন পর্দার দোকান ঘুরে দেখা গেছে, ঈদ উপলক্ষে এসব দোকানগুলোতে কুশন কভার, পর্দা, বেড কভার ইত্যাদির প্রচুর নতুন সংগ্রহ এসেছে।
সাহেববাজার কাপড়পট্টিতে, নিউমার্কেটে, আরডিএ মার্কেটে এবং কুমারপাড়ায় অনেক দোকান রয়েছে যেখানে এসব উপকরণ কিনতে পাওয়া যায়। কটন, সিন্থেটিক, নেট, টিস্যু বিভিন্ন কাপড়ের পর্দা ও মখমল, শার্টিন, জুট, কটন, সিন্থেটিকের কুশন কভার এবং সোফার কভার পাওয়া যায়। ঈদ উপলক্ষে কুশন কভার প্রতিটি বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা থেকে শুরু করে ৮শ টাকায়। দরজা এবং জানালার পর্দা প্রতি পিস বিক্রি হচ্ছে ২শ থেকে শুরু করে ২ হাজার টাকায়। বিভিন্ন মানের কার্পেট রয়েছে, এক হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৪০ হাজার টাকার মধ্যে। এছাড়া সোফার কভার ১৫০ টাকা থেকে শুরু করে সাড়ে ৯শ টাকায় ও বেডশিট সাড়ে ৬শ টাকা থেকে শুরু করে ২০ হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে এসব দোকানে।
কুমারপাড়ায় মেসার্স ইসলাম টেক্সের বিক্রয়কর্মী দেবাশীষ বললেন, সারাবছরই আমাদের দোকানে ক্রেতা সমাগম লেগেই থাকে কিন্তু ঈদ উপলক্ষে ক্রেতাদের প্রচুর ভিড় বেড়ে গেছে। ২২ রমজানের পর থেকেই এই ভিড় বাড়তে শুরু করেছে। সাধারণত ঈদের কয়েকদিন পর পর্যন্ত এরকম ভিড় থাকে। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, যারা কাজের জন্য রাজশাহীর বাইরে থাকেন ঈদের ছুটিতে বাড়িতে এসে ফিরে যাওয়ার সময় পর্দা, কার্পেট, কুশন কভার, সোফার কভার ইত্যাদি কিনে নিয়ে যান।
সাহেববাজার কাপড়পট্টিতে আলপনা রায় নামে এক ক্রেতা জানালেন, তাদের ঘরের দেয়ালের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে পর্দার জন্য কাপড় ও সোফার কভার কিনলেন। ঈদের বিশেষ দিনটিতে তাদের ঘরকে নতুন রূপে সাজাতে তিনি এখন কুশন কভার ও বেডশিট কিনবেন।
এছাড়াও বাজারে কোন কোন দোকানে ব্লকপ্রিন্ট, বাটিক, হাতের কাজ, কাটওয়ার্কসহ বিভিন্ন ডিজাইনের পর্দা ও কুশন রয়েছে। যার মধ্যে ফুটে উঠেছে লোকজ নকশার ছাপ।