ঈদ বাজারে জাল টাকা সতর্কতামূলক প্রচারণা দরকার

আপডেট: জুন ১০, ২০১৮, ১২:৪৬ পূর্বাহ্ণ

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ৫ কোটি টাকার জাল নোট বাজারে ছাড়ার টার্গেট নিয়েছিল একটি চক্র। মাত্র ১০ হাজার টাকা খরচ করে তারা তৈরি করতে পারেন এক লাখ টাকা মূল্যমানের জাল নোট। আর এই লাখ টাকা মূল্যমানের জাল নোট মাত্র ১৫ হাজার টাকায় পাইকারি দরে বিক্রি করতো তারা। এভাবে সাধারণ মানুষকে প্রতারণা করে আসছি চক্রটি। এই চক্রের এক নারীসহ ১০ জনকে ধরার পর তাদের জিজ্ঞাসাবাদের বরাতে পুলিশ এই তথ্য জানিয়েছে। বৃহস্পতিবার রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা উত্তর বিভাগের একটি টিম। এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন দেশের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।
ওই প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী অভিযানে আটকদের কাছ থেকে প্রায় এক কোটি জাল টাকা জব্দ করা হয়। সেইসঙ্গে জব্দ করা হয় টাকা তৈরিতে ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জাম। এর মধ্যে জাল টাকা তৈরির জন্য কালো রঙের অ্যাসার একটি, একটি ল্যাপটপ, দুটি কালার প্রিন্টার, জাল টাকার প্রিন্টকৃত ১৬টি পাতা, স্ক্রিন বোর্ড ১০টি (এর সাহায্যে জালনোটে জলছাপ হলগ্রাম লেখার প্রিন্ট দেয়া হয়), স্ক্রিন বোর্ডের পিড়া, জালটাকা তৈরির আইপিআই কালির সাদা প্লাস্টিকের কৌটা ২৭টি, কালার কার্টিজ ৩০০টি ও জালটাকা তৈরি সূতা ও রোল রয়েছে।
জাল টাকাএকটি বহু পুরাতন কারবার। প্রতারক চক্র জাল টাকা তৈরির সাথে সব সময়ই সম্পৃক্ত থাকে। তবে জাতীয় উৎসব বিশেষ করে ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহাতে এর প্রবণতা বৃদ্ধি পায়। আবার এই প্রতারক চক্রের সাথে আন্তর্জাতিক চক্রের যোগসাজস থাকে। সাম্প্রদিককালে ভারতীয় জাল টাকাসহ কয়েকটি ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে পুলিশ গ্রেফতার করে। অর্থাৎ জাল টাকার কারবারিরা সব সময় সক্রিয় থাকে। একটি দেশে জাল টাকার প্রভাব বৃদ্ধি পেলে সে দেশের অর্থনীতি চাপের মধ্যে পড়বে এটাই স্বাভাবিক। বাংলাদেশ ব্যাংক জাল টাকার ব্যাপারে সতর্কমূলক প্রচারণা কার্যক্রম চালিয়ে থাকে। কিন্তু ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে এই প্রচারণা প্রয়োজন ছিল, সেটা হচ্ছে না। জাল টাকার কারবারিদের মাঠ পর্যায়ের কর্মীরা বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য, দ্রবাদি ক্রয়ের মাধ্যমে এই জালনোট বাজারে বিস্তার করে থাকে। স্বাভাবিকভাবেই কেনাটাকার আধিক্যের সময়টুকু ওরা কাজে লাগায়। ক্রেতা বিক্রেতা লেনেদেনের ক্ষেত্রে তেমন সতর্ক থাকে না। এই সুযোগটিই কাজে লাগায় প্রতারকচক্র।
ঈদের আর কয়েক দিন বাকি আছে। এই সময়টুকু সতর্কতামূলক প্রচরণা চালালে অনেকেই সতর্ক-সাবধান হতে পারে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ