ঈশ^রদী বিএনপির নতুন কমিটিতে ফাঁসির দ-প্রাপ্ত বাবলু-পিন্টুর নাম পাল্টা কমিটি ঘোষণা

আপডেট: নভেম্বর ৯, ২০১৯, ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

সেলিম সরদার, ঈশ্বরদী


৪ বছর পর ঈশ্বরদী উপজেলা বিএনপির নতুন কমিটি গঠন করার এক সপ্তাহ যেতে না যেতেই উপজেলা বিএনপির পাল্টা কমিটি এবং পৌর বিএনপির নতুন কমিটি গঠন করেছে উপজেলা ও পৌর বিএনপির একাংশের নেতা-কর্মীরা। বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও পাবনা জেলা বিএনপির আহবায়ক হাবিবুর রহমান হাবিবের গঠিত উপজেলা বিএনপির কমিটিকে চ্যালেঞ্জ করে এই কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে বিএনপির নির্ভরযোগ্য একাধিক নেতারা জানান। নতুন এই দুই কমিটির মধ্যে পৌর বিএনপির আহবায়ক করা হয়েছে সাবেক পৌর মেয়র ও পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি মকলেছুর রহমান বাবলুকে এবং উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব করা হয়েছে পৌর বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া পিন্টুকে। তারা দুজনই শেখ হাসিনার ট্রেনে গুলিবর্ষণ মামলায় ফাঁসির দ-প্রাপ্ত আসামী। এদের মধ্যে বাবলু রাজশাহী কারাগারে এবং রায় ঘোষণার পর থেকে পিন্টু পলাতক রয়েছেন।
ফাঁসির দ-প্রাপ্ত মকলেছুর রহমান বাবলুর স্ত্রী সেলিনা রহমান শিউলি জানান, আমার স্বামী মকলেছুর রহমান বাবলু কিংবা আমার কোনো অনুমতি না নিয়েই তার নাম পৌর বিএনপির আহবায়ক হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। অনুমতি ছাড়া কমিটিতে তার নাম ব্যবহার করার প্রতিবাদ জানিয়েছেন তিনি। ফাঁসির দ-প্রাপ্ত উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব জাকারিয়া পিন্টু পলাতক থাকায় তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে তার ঘনিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে, এই কমিটি তার ইচ্ছে ও নির্দেশেই গঠন করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় (৭ নভেম্বর) ঈশ্বরদীর ললিত কলা একাডেমি মিলনায়তনে উপজেলা ও পৌর বিএনপির (একাংশ) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবসের অনুষ্ঠান শেষে বিএনপির এই দুই কমিটি গঠন করা হয়। এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব এবং আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন কমিটির আহবায়ক, যুগ্ম আহবায়ক ও সদস্য সচিবের নাম ঘোষণা করেন উপজেলা বিএনপির সাবেক সহ সভাপতি বেলাল দেওয়ান। উপজেলা বিএনপির আহবায়ক আহসান হাবিব, যুগ্ম আহবায়ক খায়রুল ইসলাম ও সদস্য সচিব জাকারিয়া পিন্টু এবং পৌর বিএনপির নতুন কমিটির আহবায়ক মকলেছুর রহমান বাবলু, যুগ্ম আহবায়ক এসএম ফজলুর রহমান ও সদস্য সচিব বিষ্টু সরকারের নাম ঘোষণা করা হয়। এই অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও পাবনা জেলা বিএনপির আহবায়ক হাবিবুর রহমান হাবিবকে ঈশ্বরদীতে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে স্লোগান দেয় উপস্থিত নেতা-কর্মীরা।
এর আগে গত ১ নভেম্বর ঈশ্বরদীর সাহাপুর আবুল কাশেম উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা বিএনপির আরেক অংশের উদ্যোগে আয়োজিত সভা শেষে সাবেক এমপি আবদুল বারী সরদারকে আহবায়ক ও প্রভাষক আজমল হোসেন সুজনকে সদস্য সচিব করে আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়, এই কমিটির যুগ্ম আহবায়ক হিসেবে জিয়াউল হক সন্টু, হাসিবুর রহমান হাক্কে মন্ডল, জহুরুল ইসলাম ও আব্দুস সামাদ সুলভ মালিথার নাম রয়েছে। এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও পাবনা জেলা বিএনপির আহবায়ক হাবিবুর রহমান হাবিবসহ জেলার অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে বিএনপির এই পাল্টা-পাল্টি কমিটি গঠন ও দলীয় কোন্দল সম্পর্কে পৌর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক এস এম ফজলুর রহমান বলেন, হাবিবুর রহমান হাবিবের দ্বারা গঠিত বিএনপির কমিটিকে আমরা মানি না। তার কমিটিকে চ্যালেঞ্জ করে নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব সামসুদ্দিন আহমেদ মালিথা বলেন, ২০১৫ সালের জুলাই মাসের পর ঈশ্বরদী উপজেলা বিএনপির কোনো সম্মেলন হয়নি। নতুন কমিটি নিয়ে পাল্টাপাল্টি অবস্থানে নেতা-কর্মীরা যেভাবে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি করছেন তা দলের জন্য ক্ষতির কারণ।
পাবনা জেলা বিএনপির আহবায়ক হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, যারা সংগঠন বিরোধী কাজ করবে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
দলীয় সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালে উপজেলা বিএনপি এবং ২০১৬ সালে ঈশ্বরদী পৌর বিএনপির সর্বশেষ সম্মেলনের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ