ঈশ্বরদীতে ইয়াবা তল্লাশির নামে পুলিশ পরিচয়ে শিক্ষকের বাড়িতে ডাকাতি

আপডেট: জুন ১২, ২০১৮, ১:২০ পূর্বাহ্ণ

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি


ঈশ্বরদীতে ইয়াবা তল্লাশির নাম করে পুলিশ পরিচয় দিয়ে এক স্কুল শিক্ষকের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার সাঁড়া ইউনিয়নের ভাদুর বটতলা এলাকায় গত রোববার দিবাগত গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে। ঈশ্বরদী উপজেলার গোপালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আমজাদ হোসেন (৫৫), তার স্ত্রী সাহিদা বেগম স্বপ্না (৪৫) ও ছেলে রাজিব রানার (২০) হাত-পা বেঁধে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ৩ ভরি স্বর্ণের গহনা, নগদ ৭০ হাজার টাকা ও কয়েকটি মোবাইল ফোন লুট করে নিয়ে যায়। পরে তাদের চিৎকারে এলাকার লোকজন এগিয়ে এলে ডাকাতরা মোটরসাইকেল যোগে তারা পালিয়ে যায়।
শিক্ষকের ছেলে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সরোয়ার রহমান শাকিল জানান, রাত পৌনে ১টার দিকে প্রথমে বাড়ির সামনে এসে ৬-৭ জনের একটি দল তার ফুফাতো ভাই স্বপন আলীকে (২৮) মারধর করতে থাকে।
এ সময় তার চিৎকারে আমরা বাড়ির গেট খুলে এগিয়ে গেলে, পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযান চলছে বলে উল্লেখ করে তাদের কাছে তথ্য রয়েছে যে তাদের বাড়িতে ইয়াবা আছে- এই বলে সংঘবদ্ধ ডাকাতদল তাদের ঘরে প্রবেশ করে ডাকাতি করে। সাঁড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমদাদুল হক রানা সরদার জানান, সাঁড়া ইউনিয়নে পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতির ঘটনা দুঃখজনক। রাতেই খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশে খবর দেয়া হলে পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক, ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিম উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঈশ্বরদী থানার ওসি আজিম উদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এ ঘটনায় সংঘবদ্ধ গ্রুপ জড়িত রয়েছে। তাদের খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে। ঈশ্বরদী থানায় মামলা হয়েছে।