ঈশ্বরদীতে দুই স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণ

আপডেট: মার্চ ১৩, ২০১৮, ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি


ঈশ্বরদীর বাঁশেরবাদা বহুমুখী উচ্চবিদ্যালয়ের শত বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠান থেকে বাড়িফেরার পথে দুই স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ করে রাতভর ধর্ষণ করা হয়েছে। গত রোববার সারারাত ওই দুই ছাত্রীকে গড়গড়ি উত্তরপাড়া এলাকার একটি পরিত্যক্ত ঘরে আটকে রেখে রাতভর ধর্ষণ করে গতকাল সোমবার সকালে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।
ধর্ষকদের মধ্যে একজন গড়গড়ি উত্তরপাড়ার সিরাজুল ইসলাম মনার ছেলে রমজান আলী ও অন্যজন একই এলাকার মনিরুল ইসলামের ছেলে রনি। গতকাল সোমবার দুপুরে ধষিতা দুজনকে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে¬ক্সে নিয়ে ডাক্তারী পরীক্ষা করার পর ঈশ্বরদী থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে বলে জানায় পুলিশ ও দুই শিক্ষার্থীর অভিভাবকরা।
ধর্ষণের শিকার দুই ছাত্রী জানায়, রোববার বিকেলে বাঁশেরবাদা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের শত বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠান থেকে বাড়ি ফিরছিলো তারা, পথিমধ্যে একটি অটোবাইকে তাদের দুজনের মুখ বেঁধে তুলে নিয়ে যায় রমজান ও রনি। তাদের দুজনকে রমজানের বাড়ির পাশে একটি পরিত্যাক্ত ঘরে আটকে রেখে রাতভর তাদের উপর পাশবিক নির্যাতন করে তারা। এসময় তাদের দুজনের মুখ বেঁধে রাখে ধর্ষকরা। এদের মধ্যে একজনের রক্তক্ষরণ হলে সে অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। রাত শেষে গতকাল সোমবার সকাল ৮টার দিকে তাদের ওই ঘর থেকে বের করে বাড়ি চলে যেতে বলে রমজান ও রনি। এদিকে সারারাত ওই দুই ছাত্রীকে কোথাও খুঁজে না পেয়ে তাদের পরিবারের লোকজন উদ্বিগ্ন হয়ে খোঁজাখুঁজি করার এক পর্যায়ে সকালে তারা দুজন বাড়ি ফিরে এসে ঘটনার বর্ননা করলে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ওই এলাকার ইউপি মেম্বার শামসুল প্রাং জানান, দুই ছাত্রীকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলনা এমন খবর তিনি জানতেন। গতকাল সোমবার সকালে তারা বাড়িতে ফিরে এলে ঘটনাটি তিনি অবগত হন। এরপর তাদের নিয়ে এলাকবাসীর সঙ্গে ঈশ্বরদী থানায় এসে এ ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবি জানান তিনি।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিম উদ্দীন বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে অবগত হয়ে এলাকায় পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করার পর বিস্তারিত জানা যাবে। ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত ডা. দেবব্রত পাল জানান, তাদের শারিরিক অবস্থা পরীক্ষা করার আগে কিছু বলা যাচ্ছেনা। ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক জানান, অভিযোগ তদন্ত করে এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।