ঈশ্বরদীতে পুলিশের তাড়ায় পানিতে ডুবে যুবকের মৃত্যু

আপডেট: জানুয়ারি ৫, ২০১৭, ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি


ঈশ্বরদীতে পুলিশের তাড়া খেয়ে পানিতে ডুবে মাছ বিক্রেতা মুকুল মুন্সী (৪০) নামে এক ব্যক্তির মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। গত মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১০টার দিকে পৌরসভার ভুতেরগাড়ী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত মুকুল মুন্সি শহরের পিয়ারাখালী এলাকার মৃত আবু জাফর মুন্সির ছেলে।
স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মাছ ব্যবসায়ী মুকুল তার কয়েকজন বন্ধুসহ ভুতের গাড়ী এলাকার একটি বড় পুকুরের পাড়ে বসে তাড়ি খাচ্ছিল। এসময় সাদা পোশাকে ঈশ্বরদী থানার দুজন পুলিশ সেখানে উপস্থিত হলে অন্যরা দৌড়ে পালিয়ে গেলেও মুকুল বাঁচার জন্য পুকুরে লাফ দেয়। সাঁতার না জানায় মুকুল বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করলে গ্রামের দু’জন পানিতে নেমে খোঁজার চেষ্টা করেও রাতের অন্ধকারে মুকুলকে খুঁজে পান নি। ততক্ষণে মুকুল পানিতে তলিয়ে যায়। পরে ঈশ্বরদী ও রাজশাহীর দমকল বাহিনীকে খবর দিলে তারা ঘটনাস্থলে এসে রাত ১২টার সময় পুকুরে তলদেশ থেকে মুকুলের মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সিদ্দিকুর রহমান এবং ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক ঘটনাস্থল রাতেই পরিদর্শন করেন।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই তালুকদার জানান, পুকুরপাড় থেকে তাড়ি ছাড়াও কিছু দেশী মদও উদ্ধার হয়েছে। মুকুলের লাশ ময়না তদন্তের জন্য গতকাল বুধবার পাবনায় পাঠানো হয়েছে। এদিকে মুকুলের আত্মীয় জনি জানান, তাকে থানায় ডেকে নিয়ে মুকুল মাদক বিক্রেতা ছিল এবং পুলিশের গ্রেফতার এড়াতে মুকুল পানিতে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে একটি লিখিত কাগজে জনির স্বাক্ষর নেয়া হয়েছে।