ঈশ্বরদীতে মহাসড়কে কৃষি পণ্য ফেলে পরিবহণ ধর্মঘটের প্রতিবাদ কৃষকদের

আপডেট: মে ২৩, ২০১৭, ১২:৪৬ পূর্বাহ্ণ

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি


ঈশ্বরদীতে মহাসড়কে কৃষি পণ্য ফেলে পরিবহণ ধর্মঘটের প্রতিবাদ জানায় কৃষকরা

উত্তরাঞ্চলে ট্রাক-লরি পরিবহন বন্ধ থাকায় স্থানীয় কৃষকের কাছ থেকে সবজি ক্রয় করছেন না পাইকার মহাজনরা। ফলে কৃষকদের উৎপাদিত সবজি জমিতেই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এর প্রতিবাদ জানাতে ঈশ্বরদীর সবজি চাষিরা তাদের জমির ফসল তুলে এনে রাস্তায় ঢেলে দিয়ে মহাসড়ক অবরোধ করেন।
গতকাল সোমবার ঈশ্বরদী-ঢাকা মহাসড়কের মূলাডুলি সবজি আড়তের সামনে কৃষকরা মানববন্ধন, মহাসড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। কৃষকদের এই আন্দোলনে একাত্মতা প্রকাশ করে মহাসড়কে কৃষি পণ্য ফেলে দিয়ে ৩০ মিনিট রাস্তা বন্ধ করে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ কৃষক উন্নয়ন সোসাইটি কেন্দ্রীয় কমিটির কৃষকেরাও। এসময় মহাসড়কের উভয় পাশে শত শত যানবাহন আটকে যানযটের সৃষ্টি হয়। মানববন্ধনের পর সেখানে পথসভায় বাংলাদেশ কৃষক উন্নয়ন সোসাইটি কেন্দ্রিয় কমিটির সভাপতি কৃষক সিদ্দিকুর রহমান কুল ময়েজের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাতীয় কৃষক আবদুল জলিল লিচু কিতাব, বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক প্রাপ্ত কৃষক হাবিবুর রহমান মাছ হাবিব, জাতীয় সবজি পদক প্রাপ্ত কৃষাণী বেলি বেগম, কৃষক মুরাদ মালিথা, আমিনুর রহমান শিম বাবু, সাইদার হোসেন কপি বাবু, ফয়সাল আহমেদ প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, কৃষকেরা কখনো অবরোধ, হরতাল, ভাঙচুর, জালাও পোড়াও বিশ্বাস করে না। রোদ বৃষ্টিতে ভিজে কৃষক মাঠে ফসল ফলিয়ে থাকে। অনেক সময় সেই ফসলের ন্যায্যমূল্য পায় না কৃষক। এর পরে মাঝে মধ্যে অবরোধ ও হরতালের কারণে কৃষকেরা পথে বসে যায়। হঠাৎ করে উত্তরাঞ্চলে পরিবহন বন্ধ থাকায় মহাজনেরা স্থানীয় কৃষকের কাছ থেকে সবজি ক্রয় করছেন না। সবজি বিক্রি করতে না পারায় ঢেঁড়স উত্তোলনের টাকাও উঠছেন। ঢেঁড়স উত্তোলন করে আড়তে আনার পর তা ফেলে দিতে হচ্ছে। অনেক সময় জমির ফসল জমিতে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।