ঈশ্বরদীতে স্ত্রীর ওপর অভিমান করে বেকার স্বামীর আত্মহত্যা

আপডেট: জানুয়ারি ২, ২০১৭, ১২:২২ পূর্বাহ্ণ

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি


ঈশ্বরদীর পাকশীতে স্ত্রীর ওপর অভিমান করে সরোজ হোসেন (৩০) নামে এক ব্যক্তি গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। গত শনিবার রাতে পাকশীর মেরিন পাড়ায় তার বাসার ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় সরোজের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
সরজ রেলওয়ের অবসরপ্রাপ্ত টিটিই হাফিজুর রহমান ও অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংকার হাসিনা বেগমের ছেলে। এলাকাবাসী জানান, সরজের বেকার থাকা নিয়ে স্ত্রীর কাছ থেকে প্রায়ই কটুক্তি ও অপমান সইতে হতো তাকে। এরই ধারাবাহিকতায় তার স্ত্রী তাকে ছেড়ে বাপের বাড়ি চলে যাওয়ার পর ক্ষোভে দুঃখে আত্মহত্যা করতে পরে সরজ বলে জানান প্রতিবেশীরা। তারা জানান, আত্মহত্যার আগে সরজের বাসার গেটে তিনি লাল কালি দিয়ে ‘ভাই ভাবী ছাড়া কেউ যেন বাসায় না ঢোকে’ একথা লিখে তার মোবাইল নম্বর লিখে রেখেছিলেন। অনেক ডাকাডাকির পরও ভেতর থেকে দরজা না খুললে দরজা ভেঙে ফ্যানের সঙ্গে তার মরদেহ ঝুলতে দেখা যায়। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই জানান, এ বিষয়ে ঈশ্বরদী থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।