ঈশ্বরদীর ভাষাশহিদ স্কুলের শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ : শিক্ষক বরখাস্ত

আপডেট: জুলাই ১৫, ২০১৯, ১:৩৫ পূর্বাহ্ণ

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি


ঈশ্বরদীর ভাষা শহিদ বিদ্যানিকেতনের সহকারী শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম সিরাজকে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ বরখাস্ত করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ওই শিক্ষককে স্থায়ীভাবে বরখাস্ত করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। গতকাল রোববার বিকেলে এই সিদ্ধান্ত লিখিতভাবে ওই শিক্ষককে জানিয়ে দেয়া হয়েছে ।
ওই ছাত্রী ও স্থানীয়রা জানান, শনিবার সকালে ভাষা শহিদ বিদ্যানিকেতনের সহকারী শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম সিরাজের জয়নগর ওয়াবদাগেট সংলগ্ন বাড়িতে প্রাইভেট পড়তে যায় ওই ছাত্রী। সে সময় অন্য কোনো ছাত্রী প্রাইভেট পড়তে না আসায় ওই শিক্ষক তাকে একা পেয়ে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে। এসময় ছাত্রীর চিৎকারে সিরাজের স্ত্রী ছুটে এসে উল্টো ছাত্রীকেই শাসিয়ে বলেন এ কথা যেন অন্য কেউ না জানে। ওই ছাত্রী সেখান থেকে স্কুলে এসে কান্নায় ভেঙে পড়েন এবং সহপাঠীদের কাছে বিষয়টি খুলে বলেন।
স্কুলের একজন শিক্ষক বলেন, শনিবার এ ঘটনাটি স্কুল জুড়ে ছড়িয়ে পড়লে শিক্ষার্থীরা বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে। তারা বিক্ষোভ করে মানববন্ধন করার চেষ্টা করলে প্রধান শিক্ষক তাদের শান্ত করেন। শ্লীলতাহানীর শিকার ছাত্রী বলেন, সিরাজ স্যার আমাকে একা পেয়ে শ্লীলহানির চেষ্টা করে। স্যারের এমন আচরণে আমি হতভম্ব। ছাত্রীর বাবার সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।
স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোক্তার হোসেন বলেন, সিরাজ এই স্কুলের খ-কালিন শিক্ষক। তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে গতকাল রোববার স্থায়ীভাবে স্কুল থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সেলিম আক্তার এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ