ঈশ্বরদীর সড়কে নিম্নমানের উপকরণ ব্যবহার রাস্তার কাজ আবারো বন্ধ ঘোষণা

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১, ২০১৯, ১২:১৯ পূর্বাহ্ণ

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি


ব্যবহারের আগেই গুড়ো হয়ে যাওয়া খোয়া দেখাচ্ছেন স্থানীয়রা-সোনার দেশ

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার সলিমপুর ইউনিয়নের জয়নগর বিশ্বরোড মোড়-মিরকামারী সড়কে আবারো নির্মাণে নিম্নমানের উপকরণ ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। এ কারণে ঈশ্বরদী উপজেলা প্রকৌশলী এনামুল কবির গতকাল শনিবার সড়কটি পরিদর্শন করে কাজ সাময়িক বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।
এর আগে এক মাস আগে এই একই রাস্তায় সড়কটিতে নিম্নমানের নির্মান উপকরণ সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ উঠায় উপজেলা প্রকৌশল অধিদফতর থেকে এই রাস্তার নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরে দরপত্র অনুযায়ী মানসম্মত নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের শর্তে ঠিকাদার পুনরায় সড়কের কাজ শুরু করে।
উপজেলা প্রকৌশলী কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের প্রকল্পের আওতায় ৬৯ লাখ টাকা ব্যয়ে সলিমপুর ইউনিয়নের জয়নগর বিশ্বরোড মোড় থেকে মিরকামারী চাঁদ আলী মোড় পর্যন্ত ১ দশমিক ১১৭ কিলো মিটার পর্যন্ত দীর্ঘ এ সড়কের উন্নয়ন কাজ শুরু হয় মে মাসে। এ কাজের জন্য মেসার্স আফরোজা সুলতানা নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে নিযুক্ত করা হয়। দরপত্রের শর্তানুযায়ী পাকা সড়কে ভালো মানের পিকেট, খোয়া, বালু ও ইট বিছানোর কথা। কিন্তু কাজ শুরুর কয়েকদিন পর সড়কটিতে পচা খোয়া, নিম্নমানের পিকেট, বালু ব্যবহার করা হচ্ছিল। খবর পেয়ে উপজেলা প্রকৌশলী সরেজমিনে অভিযোগের সত্যতা পান ও কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।
খবর পেয়ে গতকাল শনিবার সরেজমিনে ওই রাস্তায় গিয়ে দেখা যায়, সড়কে ও সড়কের দুইপাশে নিম্নমানের খোয়া রাখা আছে। মাটিমিশ্রিত বালু সড়কে দেওয়া হয়েছে। পিকেটগুলো ভেঙে গুড়া হয়ে গেছে।
জয়নগর গ্রামের বাসিন্দা মজিবর রহমান বলেন, সড়কে খারাপ খোয়া ও ইট দেওয়া হচ্ছে। ভালোমানের খোয়া ও বালু দেওয়ার জন্য ঠিকাদারকে বারবার অনুরোধ করা হলে তারা শুনছেন না, উপরন্ত পুলিশ দিয়ে গ্রেফতার করার ভয় দেখায় ঠিকাদারের লোকজন।
এসব বিষয়ে ঈশ্বরদী উপজেলা প্রকৌশলী এনামুল কবির বলেন, এর আগেও নিম্নমানের খোয়া ব্যবহারের কারণে সড়কের কাজ বন্ধ করা হয়েছিল। তিনি পুনরায় এমন অভিযোগ পেয়ে সড়কটি পরিদর্শন করে অভিযোগের সত্যতা পান ও কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।