উচ্ছৃঙ্খল ক্রিকেটারদের প্রতি কঠোর হচ্ছে বিসিবি

আপডেট: আগস্ট ১০, ২০১৮, ১:০২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ক্রিকেটাররা যেমন সম্মান বয়ে আনেন। আবার তাঁদের বিতর্কিত কর্মকা-ে ঠিক উল্টোটাও হয়। আর এতে সবচেয়ে বেশি বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয় বিসিবিকে। গত কিছুদিনে কয়েকজন ক্রিকেটারের বিশৃঙ্খল ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে সরগরম হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। উচ্ছৃঙ্খল এই ক্রিকেটারদের নিয়ে কী ভাবছে বিসিবি?
৪৭ দিনের ক্যারিবীয় দ্বীপ ও যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে বাংলাদেশ দল আজ ফিরেছে দেশে। সাফল্যের এ ক্ষণেও চলে এসেছে প্রসঙ্গটি। মাঠের পারফরম্যান্স যেমন দেশের ক্রিকেটের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করে, তেমনি কিছু খেলোয়াড়ের উচ্ছৃঙ্খল জীবন আর নানা বিতর্কিত ঘটনা ভাবমূর্তি নষ্টও করে। এসব খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে বিসিবি কী উদ্যোগ নিচ্ছে?
বিসিবি নাজমুল হাসান বললেন, ‘ব্যক্তিগত বিষয়ে কিছু করা কঠিন। আমরা তো তাদের বাসায় গিয়ে পর্যবেক্ষণ করতে পারব না। ওদের বুঝতে হবে। তাদের সুযোগ দেওয়া হয়েছে প্রচুর। শোধরানোর সুযোগ যদি তারা না নেয়, সেটি ওদের সমস্যা। বোর্ডের সমস্যা নয়। আমরা মনে করেছিলাম, শেষ যে বিচারটি হয়েছিল (সাব্বির রহমানের), তার পর সব ঠিক হয়ে যাবে। এতেও যদি ঠিক না হয়, তাহলে তো কঠোর সিদ্ধান্ত নিতেই হবে, উপায় নেই। এ ধরনের বিশৃঙ্খলা ক্রিকেটের জন্য ভীষণ খারাপ। যেহেতু বাংলাদেশের ক্রিকেট ভালো জায়গায় আছে, খেলোয়াড়দের নিয়ে বিতর্ক হোক, আমরা চাই না।’
বিসিবি সভাপতি কদিন আগে বলেছিলেন, টেস্ট উন্নতি করতে তারকা ক্রিকেটারদের ঘরোয়া ক্রিকেট খেলতে বাধ্য করা হবে। গতকাল অবশ্য বিসিবি সভাপতির কণ্ঠে সুরটা বদলেছে, ‘আমাদের ঘরোয়া প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট কজন খেলে? চার দিনের ম্যাচ না খেললে পাঁচ দিন খেলবে কি করে? ওরা চায় না খেলতে। তবে আমরা চেষ্টা করব ওদের খেলানোর। তবে যে লম্বা সূচি আমাদের, কোচ ও ক্রিকেটারদের বিশ্রাম কখন দেব, সেটা নিয়েই চিন্তা করে পারছি না! এত খেলা, এত সফর, এই ধকল কীভাবে সামলাবে, সেটা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। যেমন, সাকিবের মতো ক্রিকেটারের বিরতি দরকার। ও যদি টেস্ট খেলে, ওয়ানডে টি-টোয়েন্টিও খেলে এবং টানা খেলে, তাহলে কখন বিরতি দেব? আবার বিপিএল ও ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টও খেলবে। ওদের জন্য তাই সময় বের করতে হবে।’-প্রথম আলো অনলাইন