উপজেলা নির্বাচন || গুরুদাসপুরে সহিংতার আশঙ্কা

আপডেট: মার্চ ৩, ২০১৯, ১২:১১ পূর্বাহ্ণ

গুরুদাসপুর প্রতিনিধি


গুরুদাসপুরে উপজেলা নির্বাচনে তিন চেয়ারম্যান প্রার্থী বাম থেকে জাহিদুল ইসলাম, সরকার এমদাদুল হক ও আনোয়ার হোসেন-সোনার দেশ

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নাটোরের গুরুদাসপুরে আওয়ামীলীগের মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী জাহিদুল ইসলামের সুনিশ্চিত বিজয়ে বাধা আ’লীগেরই দুই বিদ্রোহী প্রার্থী ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন ও সরকার এমদাদুল হক।
আ’লীগের দুই বিদ্রোহী প্রার্থী আনোয়ার হোসেন ও সরকার এমদাদুল হক এখন মিছিল, মিটিং, মোটরসাইকেল মহড়া নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় রাতদিন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। ফলে এ নির্বাচনী প্রচারণকে কেন্দ্র করে সহিংসতার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
সরেজমিনে দেখা গেছে, নির্বাচনী প্রচারণার লক্ষ্যে গত শুক্রবার রাত ৮টার দিকে ওই তিন প্রার্থীর কর্মী সমর্থকেরা মোটরসাইকেল শোডাউন দিচ্ছিলেন। এসময় আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ঘোড়া প্রতীকের আনোয়ার হোসেন সমর্থিতদের মোটরসাইকেল শোডাউন ছিল স্মরণকালের বড় শোডাউন। একই সময়ে নৌকা প্রতীকের জাহিদুল ইসলামের শোডাউন এবং আনারস প্রতীকের সরকার এমদাদুল হক মোহাম্মদ আলীর শোডাউন গুরুদাসপুর-চাঁচকৈড় সড়ক প্রদক্ষিণ করার সময় উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরি হয়। এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে চাঁচকৈড় বাজারের সমস্ত দোকান পাট বন্ধ হয়ে যায়।
খবর পেয়ে সহিংসতা ঠেকাতে থানা পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে যে কোন সময় এলাকায় বড় ধরণের সংঘর্ষ ঘটে যেতে পারে বলে আতঙ্কিত রয়েছে এলাকাবাসী।
দলীয় নেতাকর্মী সূত্রে জানা গেছে, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও গুরুদাসপুর পৌর আ’লীগের সভাপতি নৌকার মনোনয়ন নিয়ে এলাকায় এসে নির্বাচনী প্রচারণায় নামেন। কিন্তু জেলা আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক আনারস প্রতীকের সরকার এমদাদুল হক এবং তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ঘোড়া প্রতীকের আনোয়ার হোসেন আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণের ঘোষণা দেন। ইতোমধ্যে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। তবে কোনো হতাহতের হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।