এই ইমরানকে তো চিনি না : সৌরভ গাঙ্গুলি

আপডেট: অক্টোবর ৫, ২০১৯, ১:১২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে দেয়া পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রী, সাবেক ক্রিকেট অধিনায়ক ইমরান খানের ভাষণ নিয়ে সারা বিশ্বেই চলছে তোলপাড়। জাতিসংঘের ইতিহাসে আর কোনো নেতার ভাষণ নিয়ে এতটা তোলপাড় হয়েছে কি না সন্দেহ। বিশেষ করে ইসলাম ধর্মের পক্ষের মানুষ আর বিদ্বেষী মানুষদের আলোচনা এবং সমালোচনার শিকার হচ্ছে ইমরান খানের ভাষণ।
একই সঙ্গে পাকিস্তানের প্রতিবেশী, অথচ শত্রু দেশ ভারতও ইমরান খানের এই ভাষণের কড়া প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছে। কাশ্মীর নিয়ে ইমরান খান যে ভাষায় কথা বলেছেন, সেটাকে সহজে হজম করতে পারছে না ভারতীয়রা। রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব থেকে শুরু করে নানা শ্রেণি-পেশার ভারতীয় ইমরান খানের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে। শুধু তাই নয়, ক্রিকেটাঙ্গনের মানুষরাও এর বাইরে যায়নি।
জাতিসংঘে দেয়া ইমরান খানের ভাষণ নিয়ে আগেই প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সদ্য বিজেপিতে যোগ দেয়া এবং সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়া গৌতম গম্ভীর। এরপর খুব বাজে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন গম্ভীরেরই আরেক ওপেনিং পার্টনার বিরেন্দর শেবাগ। অবশেষে কলকাতার মহারাজ নামে খ্যাত, ভারতের সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলিও যোগ দিয়েছেন সমালোচনাকারীদের দলে।
গৌতম গম্ভীর বলেছিলেন, ‘ইমরান খান হচ্ছেন পাকিস্তান সেনাবাহিনীর পাপেট।’ বিরেন্দর শেবাগ লিখেছেন, ‘দিনকয়েক আগে জাতিংঘে তার ভাষণের মধ্যে দিয়ে মানুষটি নিজেই নিজেকে অপমান করার বিভিন্ন রাস্তা খুলে দিয়েছেন।’
ইমরানের ভাষণ দেখে চুপ থাকতে পারলেন না সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি। জাতিসংঘে দেয়া ভাষণে ইমরান খান ভারত এবং কাশ্মীর নিয়ে যে কথা বলেছেন, সেগুলোকে ‘আবর্জনা’ বলে অভিহিত করলেন সৌরভ। একইসঙ্গে জানালেন, ‘পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খানকে মানুষ চেনে; কিন্তু এই ইমরানকে বিশ্ব চেনে না। এই ইমরান খানকে আমরা চিনি না।’
পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনা করে শেবাগ যে টুইট করেছেন, প্রত্যুত্তরে সৌরভ টুইটারে লেখেন, ‘বীরু, ভিডিওটি দেখে আমি হতবাক। এমন ভাষণ না শোনাই শ্রেয়। সারা বিশ্বজুড়ে যখন শান্তি প্রয়োজন, আর দেশ হিসেবে পাকিস্তানে যখন শান্তির বার্তা ছড়িয়ে পড়া সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন, সে সময় ওই দেশটির প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এমন নোংরা বুলি আওড়াচ্ছেন ইমরান খান! সাবেক এই ক্রিকেটারকে বিশ্ব চেনে না।’
ইমরান খানের কড়া সমালোচনাকারীদের দলে যোগ দিয়েছেন ভারতের আরও কয়েকজন ক্রিকেটার। মোহাম্মদ শামি, ইরফান পাঠানও আছেন সে দলে। রয়েছেন হরভজন সিংও। মোহাম্মদ শামি লেখেন, ‘মহাত্মা গান্ধী তার সারাজীবন ব্যায় করেছেন ভালোবাসা, সম্প্রীতি এবং শান্তির বাণী প্রচারে। অথচ, ইমরান খান জাতিসংঘের পোডিয়ামে দাঁড়িয়ে ঘৃণ্যভাবে হুমকি দিয়েছেন। হুমকির স্বরে কথা বলেছেন। পাকিস্তানের এমন নেতৃত্ব প্রয়োজন, যে উন্নয়ন নিয়ে কথা বলবে, বেকারদের চাকরি-বাকরি নিয়ে কথা বলবে। কথা বলবে অর্থনৈতিক উন্নয়ন নিয়ে। যে যুদ্ধ চাইবে না এবং মনের মধ্যে সন্ত্রাস পুষে রাখবে না।’
হরভজন সিং লিখেছেন, ‘জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ভাষণে ইমরান খান ভারতকে সম্ভাব্য পরমানু যুদ্ধের স্পষ্ট হুমকি দিয়ে রেখেছে। একজন বিখ্যাত ক্রীড়াবীদ হিসেবে ইমরান খানের ‘ব্লাড বাথ (রক্তবন্যা বয়ে যাবে)’, ‘ফাইট টু দ্য এন্ড (শেষ বিন্দু দিয়েও লড়াই করবো)’- শব্দ বাছাই প্রতিবেশি দুই দেশের মধ্যে শুধু ঘৃণার বিষই চড়াচ্ছে। একজন বিখ্যাত ক্রীড়াবীদ হিসেবে তার কাছ থেকে আশা করবো, তিনি শান্তি নিয়েই কাজ করবেন।’ হরভজন সিংকের কথাটাকেই টুইটারে কপি করে পোস্ট করে দিয়েছেন ইরফান পাঠানও।