একমাত্র ফুটওভারব্রিজ যেন মরণফাঁদ, ঝুঁকি নিয়ে পারাপার

আপডেট: মে ১৬, ২০১৮, ১:০৯ পূর্বাহ্ণ

তারেক মাহমুদ


বেহাল দশা ফুট ওভার ব্রিজের-সোনার দেশ

নগরবাসীর চলাচলের একটি মাত্র ফুটওভার ব্রিজটি দিনে দিনে মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। ফুট ওভারব্রিজটি কোনো সংস্কার না হওয়ায়য় প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হতে হচ্ছে নগরবাসীকে। এদিকে গোটা শহরের মাঝে একটি মাত্র ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণ দীর্ঘদিন হয়ে গেলেও তাতে লাগেনি কোন পরিবর্তনের ছোঁয়া। জরাজীর্ণ ব্রিজটি মেরামতের কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেনি কর্তৃপক্ষ।
ফলে প্রতিনিয়ত নগরবাসীকে ঝুঁকি নিয়েই পারাপার হতে হচ্ছে। এদিকে জনসাধারণ ঝুঁকি নিয়ে পারাপার এড়াতে প্রধান রাস্তাকে বেছে নিচ্ছেন। ফলে বাড়ছে যানজট, ঘটছে দুর্ঘটনা। গতকাল সোমবার সাহেব বাজার আরডিএ মার্কেটের সামনে ফুটওভার ব্রিজটিতে গিয়ে দেখা যায় ওভারব্রিজে ফাটল সৃষ্টি হওয়ায় অনেক সচেতন পথচারী রীতিমতো ভয়ে রাস্তা দিয়ে পারাপার হচ্ছেন।
ওভারব্রিজের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত জরাজীর্ণের ছাপ লেগে আছে। সিঁড়িগুলো ক্ষয় হয়ে ফাঁক হয়ে গেছে। দেখে মনে হয়, যেকোনো মুহূর্তে ধসে পড়বে ব্রিজটি। জং ধরা, ঝাঁঝরা ব্রিজে পারাপার হতে গেলে রীতিমতো সতর্ক হয়েই চলাচল করতে হয়। প্রতি মুহূর্তে মনে হয় কখন যেন ধসে পড়বে ব্রিজটি।
‘আরডিএ মার্কেট থেকে বাজার করে বন্ধুদের সাথে ফিরছিলেন রাজশাহী কলেজের শিক্ষার্থী মেহের জামান রূপা। রাস্তার ওপারে কাপড়পট্টি এলাকা। আরডিএ মার্কেটের কাজ সেরে প্রয়োজনীয় জামাকাপড় কিনতে ওভারব্রিজে উঠেই সামনে এগিয়ে আঁতকে উঠলেন তিনি। হালকাভাবে লেগে থাকা লোহার তৈরি জরাজীর্ণ সিঁড়ির প্রলেপ দেখিয়ে বললেন, ভা¹িস এখানে পা পড়েনি! পড়লে তো পা ভাঙতো না হলে দুর্ঘটনা। মনে হচ্ছে এবারের মতো বেঁচে গেলাম। এরপর ফুটওভারে উঠলে সাবধানে উঠতে হবে।
রাজশাহী কলেজের আরেক শিক্ষার্থী পথচারী শরিফ জোহা জানালেন গোটা শহরের মাঝে একটা মাত্র ওভারব্রিজ এটা। বর্তমানে এটার এমন অবস্থা যা চলাচলের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে গেছে। কিছুদিন আগে বন্ধুরা মিলে পারাপারের সময় হঠাৎ করেই আমাদের এক বন্ধু পা পিছলে পড়ে গেল। পড়ে যাওয়া মাত্রই আমরা তাকে ধরেছিলাম তা না হলে বড় কোন দুর্ঘটনা ঘটতে পারতো। একই ব্রিজে সবসময় এমন ঘটনা নিত্য দিনের । কিন্তু বৃষ্টির সময় গোটা ব্রিজ পিচ্ছিল হয়ে যায় সে সময় আরো বেশি সমস্যায় পড়তে হয়। আমরা নিজেরাই মাঝে মাঝে ব্রিজ ব্যবহার না করে মেইন রাস্তা দিয়েই রাস্তার ওপারে যাই।
রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হবিবুর রহমান বলেন, রাজশাহীতে একটি মাত্র ফুট ওভারব্রিজ। তবে সঠিকভাবে তা সংরক্ষণের অভাবে ব্রিজটি এখন জরাজীর্ণ হয়ে আছে যা জনসাধারণের চলাচলের জন্য মারাত্মক হুমকি স্বরূপ। এই গত কিছুদিন আগে আমি নিজেই তার ভুক্তোভুগি। ব্রিজে উঠার সময় হঠাৎ করেই পা পিছলে গিয়েছিলো সচেতন থাকায় তখন কিছু হয়নি। বর্ষার সময় গোটা ওভারব্রিজ মারাত্মকভাবে পিচ্ছিল হয়ে থাকে যা জনসাধারণের চলাচলের জন্য বড় কোন দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। উঠা থেকে নামা পর্যন্ত সব সময় সাবধানে চলাচল করতে হয়। বিশেষ করে নামার সময় আরো বেশি সতর্ক থাকতে হয়। নগরীতে শুধু একটি মাত্র ফুট ওারব্রিজ কিন্তু নগরীতে আরো অনেকগুলো ফুট ওভারব্রিজ বিশেষ ভাবে থাকা দরকার। আমাদের রাজশাহী কলেজের সামনে একটি ব্রিজ খুবই জরুরি হয়ে পড়েছে। কলেজ চলাকালীন সময়ে গেটের সামনের রাস্তায় যানজট এবং মাঝে মাঝে দুর্ঘটনা ঘটে। তাই এখানে একটি ব্রিজ থাকা আবশ্যিক হয়ে পড়েছে। শুধু কলেজ না গোটা নগরীর জন্য কয়েটি স্থানে ফুটওভারব্রিজ থাকা জরুরি হয়ে পড়েছে।
রাজশাহী সিটি কর্পরেশনের প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক জানান, সাহেব বাজার আরডিএ মার্কেটের ফুট ওভার ব্রিজের কাজ বর্তমানে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। অতি দ্রুতই সংস্কারের কাজ শুরু হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ