বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

একাত্তরে বাঙালি নিধন ছিল খুবই পরিকল্পিত

আপডেট: December 6, 2019, 1:09 am

নিজস্ব প্রতিবেদক


১৯৬৯-এ ইয়াহিয়া ক্ষমতায় এসেই পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচনের ঘোষণা দেন। এ নির্বাচনে পাকিস্তানের দুই অংশেই আওয়ামী লীগ একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়। কিন্তু ইয়াহিয়া জাতীয় পরিষদের অধিবেশন দিতে টালবাহানা করেন। ১৯৭১ এর জানুয়ারিতে তিনি ঢাকায় এসে শেখ মুজিবের সঙ্গে এক বৈঠক করেন। সেখানে তিনি কৌশলে শেখ মুজিবের সঙ্গে এক চুক্তিতে আসতে চেষ্টা করেন। সেখানে তিনি শাসনকর্মে সামরিক বাহিনী ও প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার অবস্থানটা যাতে টিকে থাকে সে বিষয়ে একটা বোঝাপড়া করতে চেয়েছিলেন। এ লক্ষে কৌশলের অংশ হিসেবে তিনি পাকিস্তানে ফিরে গিয়ে মুজিবকে পাকিস্তানের ভবিষ্যত প্রধানমন্ত্রী হিসেবে উল্লেখ করেন। কিন্তু এটা তার মনের কথা ছিল না। আসলে ভেতরে ভেতরে বাঙালিকে ক্ষমতার বাইরে রাখার ফন্দি আঁটছিলেন। তিনি জাতীয় পরিষদের অধিবেশনের ব্যাপারে কোনো কথা বললেন না। পাকিস্তানে গিয়ে তিনি ভুট্টোকে ঢাকায় পাঠালেন মুজিবের সঙ্গে আপস-রফা করার জন্য। কিন্তু তিনিও সেই একই টালবাহানার পথ ধরলেন। ভুট্টোও ব্যর্থ হয়ে ঢাকা ছাড়লেন।
একদিনে আলোচনার নামে টালবাহানা আর অন্য দিকে পশ্চিম পাকিস্তান থেকে তারা শ্রীলঙ্কা হয়ে পূর্ব পাকিস্তানে সৈন্য সমাবেশ শুরু করতে থাকে। মার্চের প্রথম থেকেই তারা এ অংশে সামরিক শক্তি বৃদ্ধি করতে থাকে। মার্চের ১ তারিখ ইয়াহিয়া খান জাতীয় পরিষদের অধিবেশ অনির্দিষ্টকালের জন্য মূলতবি করে দেন। বাঙালিদের মনে আর কোনো সন্দেহ রইলো না। তারা বুঝলো যে ইয়াহিয়াচক্র শান্তিপূর্ণ উপায়ে জনগণের প্রতিনিধির কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করবে না। এদিকে তিনি মেজর জেনারেল ইয়াকুব খানকে পূর্ব পাকিস্তানের নতুন গভর্নর হিসেবে নিয়োগ দিলেন। এ বিষয়টি বাঙালিরা ভালোভাবে নিলো না। আওয়ামী লীগ এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে গণ-অসহযোগের ডাক দিলো। এবার ইয়াহিয়ার নতুন ফন্দি। তিনি ইয়াকুব খানকে সরিয়ে তার জায়গায় লেফটেন্যান্ট জেনারেল টিক্কা খানকে পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর করার ঘোষণা দেন। তিনি ২৫ মার্চ অধিবেশনের তারিখ ঘোষণা করলেন। এই টিক্কা খান বেলুচিস্তানের বিদ্রোহ দমনে নিষ্ঠুরতার জন্য পরিচিত।
টিক্কা খানকে গভর্নর আর ২৫ মার্চ অধিবেশন- বাইরে এমন ঘোষণার অন্তরালে মূলত বাঙালি নিধনের অপারেশনের নীলনকশা চূড়ান্ত করা হয়। ইয়াহিয়া খান টিক্কা খানের বেলুচিস্তানের অভিজ্ঞতা ও রাও ফরমান আলীর অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে বাঙালিকে একটা কঠিন শিক্ষা দেয়ার পরিকল্পনা করেছেন তলে তলে।