এক নারী উদ্যোক্তার জমি দখলের চেষ্টার অভিযোগ

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮, ১:৪৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


নগরীর মোল্লাপাড়া এলাকায় উরসী মাহফিলা ফাতেহার জমি বাঁশ, খুঁটি ও টিন ফেলে দখল করার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে বাধা প্রদান করতে গেলে প্রতিপক্ষরা তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে মারমুখি হয়ে উঠে। পরে পাড়া-প্রতিবেশীরা উপস্থিত হলে প্রতিপক্ষরা পালিয়ে যায়। মেয়েটির বাবা একজন মুক্তিযোদ্ধা। তার নাম মোজাহারুল ইসলাম। এ বিষয়ে কাশিয়াডাঙ্গা থানায় সাধারণ ডায়েরি করতে গেলে ওসি বাদীদের দুই ঘণ্টা বসিয়ে রাখার পরও কোনো জিডি নেয়নি। পরে তারা বিষয়টির সুরাহা চেয়ে পুলিশ কমিশনার বরাবর আবেদন করেন।
আবেদনপত্রে বাদী উল্লেখ করেছেন, কাশিয়াডাঙ্গার মোল্লাপাড়ায় তাদের ধানী ও ভিটা জমি রয়েছে। সেই জমির ২০৬ দাগের উপর প্রতিপক্ষ মিলন ও রুহুল আমিনরা বাঁশ, খুঁটি ও টিন ফেলে দখল করার চেষ্টা করে। তাদের বাবার নাম মরহুম জমসেদ আলী। তাদের বাড়িও মোল্লাপাড়ায়। তারা তার বাবা-মায়ের আত্মীয় কিন্তু এ জমিতে তাদের দখলি স্বত্ব নেই। অথচ তা সত্ত্বেও গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে মিলন ও রুহুলসহ প্রায় ২৫ জনের একটি দল ওই জমির উপর এসব ফেলে দখল নেওয়ার চেষ্টা করে। তখন তারা বাধা দিতে গেলে তারা তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে মারমুখী হয়ে উঠে। ঘটনাস্থলে পাড়া প্রতিবেশীরা উপস্থিত না হলে তারা তাকে মারতো। কিন্তু পাড়া প্রতিবেশীরা উপস্থিত হওয়ায় প্রতিপক্ষরা পালিয়ে যায়। এরপর থেকে তারা জমিটি দখলের আশঙ্কায় খুবই চিন্তিত। এজন্য জমিটি যাতে কেউ দখল করতে না পারে সেইজন্য আইনগত ব্যবস্থা চেয়ে কাশিয়াডাঙ্গা থানায় জিডি করতে যায়। কিন্তু ওসি তাদের দুই ঘণ্টা বসিয়ে রেখেও জিডি নেয়নি। পরে তারা পুলিশ কমিশনার বরাবর আবেদন করে।
এ বিষয়ে জানতে চেয়ে ফোন দেওয়া হলে কাশিয়াডাঙ্গা থানার ওসি রবিউল ইসলাম জানান, আমি থানার বাইরে ছিলাম। তাদের বসতে বলেছিলাম। কিন্তু তারা অপেক্ষা না করেই চলে যায়। আমি থাকাকালীন সময়ে আসলে তাদের অভিযোগপত্র অবশ্যই নেওয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ