এবার ইংলিশদের কাঁপাচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ার পেসাররা

আপডেট: আগস্ট ১৬, ২০১৯, ১:২৪ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ইংল্যান্ডের আরও একটি উইকেট পড়ায় হ্যাজলউডকে ঘিরে সতীর্থদের উল্লাস-সংগৃহীত

এজবাস্টনে ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের কঠিন পরীক্ষা নিয়েছিলেন নাথান লায়ন। লর্ডসে নিচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ান পেসাররা। গতি নয়, নিখুঁত লাইন-লেন্থেই ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের জীবন দুর্বিষহ করে তুলেছেন তাঁরা। চোটপ্রবণ জেমস প্যাটিনসনের বদলি হিসেবে গতির ঝড় তুলতে সক্ষম মিচেল স্টার্ককে না নিয়ে জস হ্যাজলউডকে নেওয়াই হয়েছে জায়গা বুঝে বল করার সামর্থ্য আছে বলে। সেটি তিনি কাজে লাগাচ্ছেনও।
বৃষ্টিতে অ্যাশেজ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিন ভেসে যাওয়ার পর দ্বিতীয় দিন হ্যাজলউডই ম্যাচের গতিপথ বদলে দিলেন। হ্যাজলউডের দারুণ বোলিংয়ে প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ইংল্যান্ডের স্কোর দাঁড়িয়েছে ৮ উইকেটে ২৪৬ রান। ৫৩ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন হ্যাজলউড। দুটি উইকেট নিয়েছেন প্যাট কামিন্স। পিটার সিডল ও লায়ন পেয়েছেন একটি করে।
১৩৮ রানেই ৬ উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। সেখান থেকে রানটা ২১০-এ নিয়ে গেছেন জনি বেয়ারস্টো ও ক্রিস ওকস। পাল্টা আক্রমণ করে ৭২ রানের জুটি গড়ে কোনোভাবে রক্ষা করেছেন ইংল্যান্ডকে। ওকস ফিরেছেন ৩২ রানে। ইংলিশদের ত্রাণকর্তা হিসেবে ৫০ রানে অপরাজিত বেয়ারস্টো।
লর্ডসের মেঘলা আকাশের নিচে টসে জিতে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক টিম পেইন। ইনিংসের শুরুতেই আগ্রাসী জেসন রয়কে শূন্য রানে ড্রেসিংরুমের পথ দেখান হ্যাজলউড। বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি অধিনায়ক জো রুট। ১৪ রানে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েছেন হ্যাজলউডের লেন্থ থেকে ভেতরে আসা বলে। শুরুর ধাক্কাটা কিছুটা হলেও সামাল দিয়েছিলেন জো ডেনলি ও ওপেনার রোরি বার্নস। হ্যাজলউড তৃতীয়বারের মতো আঘাত করার আগে ৬৬ রান যোগ করেন এই জুটি। ৬৭ বলে ৩০ রান করা ডেনলিকে হ্যাজলউড আউট করলে ইংলিশ মিডল অর্ডারের দুয়ারটা সেখানেই খুলে যায়। একে একে আউট হন দুবার জীবন পেয়ে ৫৩ রান করা রোরি বার্নস, জস বাটলার ও বেন স্টোকস।