এবার পাকিস্তানে যৌন নিপীড়নের শিকার ১৩ বছরের ছেলে শিশু

আপডেট: জানুয়ারি ১৪, ২০১৮, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


শিশু জয়নাব ধর্ষণ ও হত্যার বিচার দাবিতে অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠা পাকিস্তানে এবারে এক ছেলে শিশুর ওপর যৌন নিপীড়নের খবর পাওয়া গেছে। দেশটির সংবাদমাধ্যম ডন জানিয়েছে, পাঞ্জাব প্রদেশের সারগোদা জেলা শহর থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে শাহপুর তহসিলে শিশুটির ওপর নিপীড়ন চালিয়েছে দুই অভিযুক্ত। এনিয়ে এক বছরের মধ্যে পাঞ্জাব প্রদেশে ১৪তম শিশুর ওপর যৌন নিপীড়নের ঘটনা রেকর্ড হলো।
গত ৪ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার)পাঞ্জাবের কাসুর শহরে কোরআন ক্লাসে শেষে বাসায় ফেরার পথে জয়নাবকে তুলে নিয়ে যায় দুস্কৃতকারীরা। সে সময় মা-বাবা ওমরাহ পালনে সৌদি আরবে থাকায় খালার কাছে ছিলেন জয়নাব। পরে ৯ জানুয়ারি এক পুলিশ সদস্য শাহবাজ খান রোডে আবর্জনার স্তূপ থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করেন। ময়না তদন্ত রিপোর্টে জানা যায় ধর্ষণের পর শ্বাস রোধে হত্যা করা হয়েছে তাকে। এ ঘটনায় ক্ষোভে ফুঁসছে গোটা পাকিস্তান। ঘটনার প্রতিবাদে গত বৃহস্পতিবার বিক্ষোভকারীরা কাসুর শহরে পুলিশ প্রধান কার্যালয়ে হামলা চালানোর চেষ্টা করলে নিরাপত্তা বাহিনী গুলি চালায়। এতে দু’জন নিহত হয়। শুক্রবার দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলে তৃতীয় দিনের মতো বিক্ষোভ হয়েছে। উত্তপ্ত আলোচনা হয়েছে দেশটির সংসদেও। এর মধ্যে জানা গেল শুক্রবারই ঘটেছে আরও এক শিশু নিপীড়নের ঘটনা।
ডনের খবরে বলা হয়েছে, ওই ছেলে শিশুটি মাদ্রাসা থেকে ফেরার পথে দুই ব্যক্তি তাকে একটি পোল্ট্রি খামারে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে জোর করে নেশা জাতীয় দ্রব্য খাওয়ানো হয়। পরে তার ওপর যৌন নিপীড়ন চালিয়ে পালিয়ে যায় তারা। ওই শিশুর কান্না শুনে এক পথচারী তাকে পুলিশ স্টেশনে নিয়ে যায়। তার ডাক্তারি পরীক্ষা করা হবে বলে জানিয়েছে ওই থানার কর্মকর্তারা।
এ নিয়ে পাঞ্জাবে এক বছরেরে মধ্যে ১৪ তম শিশুর ওপর যৌন নিপীড়নের ঘটনা ঘটলো। জয়নাবের ঘটনাটি ছিলো বারোতম। আর বৃহস্পতিবার সারগোদা থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে তাসাওয়ারাবাদ গ্রামের একটি মাঠ থেকে ১৫ বছর বয়সী আরেক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। আলামত দেখে ধারণা করা হচ্ছে তাকেও ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে।
তথ্যসূত্র: বাংলা ট্রিবিউন