এবার রাজশাহী বিভাগে কর্মরত ডিআইজিসহ ১০ জন পাচ্ছেন পুলিশ পদক

আপডেট: জানুয়ারি ৪, ২০১৮, ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


সেবা, কর্মদক্ষতা ও সাহসিকতার জন্য ১৮২ পুলিশ সদস্যকে বাংলাদেশ পুলিশ (বিপিএম) পদক ও প্রেসিডেন্ট পুলিশ পদক (পিপিএম) দেওয়া হচ্ছে। এরমধ্যে রাজশাহী বিভাগে কর্মরত ১০ জনকে এই পদক ৮ জানুয়ারি থেকে অনুষ্ঠেয় পুলিশ সপ্তাহে তুলে দেয়া হবে।
এরা হলেন, রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি এম খুরশিদ হোসেন, র‌্যাব-৫-এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ মাহবুবুল আলম, বগুড়ার পুলিশ সুপার (বর্তমানে অতিরিক্ত ডিআইজি) আসাদুজ্জামান, বগুড়ার এডিশনাল এসপি আরিফুর রহমান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের এডিশনাল এসপি মোহাম্মদ মাহবুব আলম খান, পাবনার এডিশনাল এসপি মোহাম্মদ আশিস বিন হাছান, রাজশাহী ট্রাফিক অফিসের এটিএসআই তাইজুল ইসলাম, রাজশাহী জেলা গোয়েন্দা শাখার এএসআই উৎপল কুমার, বগুড়া জেলা গোয়েন্দা শাখার কনস্টেবল ইসমাইল হোসেন ও বগুড়া পুলিশ লাইন্সের কনস্টেবল হেলাল উদ্দিন।
গতকাল বুধবার পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স থেকে জানানো হয়, পদকপ্রাপ্তদের মধ্যে সিটিটিসির ৩৬ সদস্যসহ ১০৬ জন পাবেন জঙ্গি দমনে বিশেষ ভূমিকার জন্য। ২০১৭ সালের ২৪ মার্চ সিলেটের আতিয়া মহলে গ্রেনেড বিস্ফোরণে নিহত র‌্যাবের প্রাক্তন গোয়েন্দা প্রধান লে. কর্নেল আবুল কালাম আজাদ, পরিদর্শক চৌধুরী মো. আবু কয়সর ও পরিদর্শক মনিরুল ইসলামকে দেওয়া হচ্ছে মরণোত্তর বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম, সাহসিকতা)। এবারই সর্বোচ্চ সংখ্যক দেওয়া হচ্ছে পুলিশ সদস্যদের।
আর যুদ্ধাপরাধ মামলার তদন্তের জন্য দুজন জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার, একজন উপপরিদর্শক এবং রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ ব্যক্তিদের নিরাপত্তার কাজে ভূমিকা রাখার জন্য একজন সহকারী পুলিশ সুপারকেও পদকে ভূষিত করা হবে। ৩০ জনকে পুলিশ পদক বিপিএম সাহসিকতা, ২৮ জনকে বিপিএম সেবা, ৭১ জনকে প্রেসিডেন্ট পুলিশ পদক পিপিএম সাহসিকতা এবং ৫৩ জনকে পিপিএম সেবা পদক দেয়া হবে। রাইজিংবিডি

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ