বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিদ্রোহী কলমে সারাবিশ্বকে কাঁপিয়ে তুলেছিলেন-নওগাঁয় খাদ্যমন্ত্রী

আপডেট: December 9, 2019, 1:34 am

নওগাঁ প্রতিনিধি


খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি বলেছেন, বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম লেখাপড়া কম জানলেও তার বিদ্রোহী কলমে সারাবিশ্বকে কাপিয়ে তুলেছিলেন। আমরা চাই, আমাদের নতুন প্রজন্মকে ডিজিটাল লেখাপড়ার পাশাপাশি তাদের জ্ঞান গরিমা এবং মা বাবার আদি সামাজিক চর্চা এবং বিদ্রোহী কবি নজরুল ইসলামকে অনুসরন করে নিজেরা যেন নিজেদেরকে তার মতো করে ত্যাগ তিথিক্ষার মধ্য দিয়ে গড়ে তুলুক। কাজী নজরুল ইসলাম ছিলেন বাংলা সাহিত্যের এক যুগপ্রবর্তক কবি। সাম্রাজ্যবাদ, সাম্প্রদায়িকতা ও পরাধীনতার বিরুদ্ধে নজরুলের অগ্নিমন্ত্র বাঙালী জাতির চিত্তে প্রেরনা ও আত্মশক্তিতে উদ্বুদ্ধ হওয়ার সুকঠিন সংকল্প জাগিয়েছিল। কবি স্বদেশ প্রেম, স্বদেশ বন্দনা, স্বদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের প্রতি আকর্ষণ এবং স্বদেশকে অন্য সকল কিছুর উর্দ্ধে স্থান দিয়েছিলেন। তার দেশবন্দনা, দেশপ্রশান্তি বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের বহু আগে থেকেই বাঙালী জাতিকে উজ্জীবিত করেছিল। তার লেখনী চিরদিনই শোষন-বঞ্চনা, অন্যায় অত্যাচার, কুসংস্কার, ধর্মান্ধতা ও গোঁড়ামীর বিরুদ্ধে আপোষহীন ছিল।
গতকাল রোববার নওগাঁ সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে তিন দিনব্যাপী জাতীয় নজরুল সম্মেলনের উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এসব কথা বলেন। নওগাঁর জেলা প্রশাসক মো. হারুন অর রশীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে সচিব ও কবি নজরুল ইন্সটিটিউটের পরিচালক আবদুর রহিম, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ও রাজশাহী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ও ডিন ড. সাইফুদ্দীন চৌধূরী, নজরুল গবেষক ও এশিয়ান ইউনিভার্সিটির প্রাক্তন বিভাগীয় প্রধান ড. সৈয়দা মোতাহেরা বানু, রাজশাহী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার কেএম আবদুল মোমেন, সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর শরীফুল ইসলাম খান প্রমুখ বক্তব্য দেন। সম্মেলনে জেলার ৫০জন শিল্পীকে নজরুল সংগীতের শুদ্ধবাণী ও সুরে নজরুল সংগীতের প্রশিক্ষক সৃজনের লক্ষ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান, জাতীয় ও স্থানীয় শিল্পীদের সমন্বয়ে সংগীতানুষ্ঠান ও নৃত্যানুষ্ঠান, শহরের নওগাঁ সরকারি কলেজ ও নওগাঁ সরকারি বিএমসি মহিলা কলেজে পৃথক দুটি আলোচনা সভা, পুরস্কার ও সনদপত্র বিতরণ এবং জেলার ১০টি স্কুলে পৃথক পৃথক প্রতিযোগিতার আয়োজন রয়েছে। এ ছাড়াও অনুষ্ঠান স্থলে প্রতিদিন বিকাল ৪টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত প্রন্থমেলার আয়োজন রয়েছে। পরে মন্ত্রী জেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত মুজিব শতবর্ষ পালন, বুদ্ধিজীবি দিবস ও বিজয় দিবস পালন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভায় যোগ দেন। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ