ক্যান্সারে আক্রান্ত শিক্ষার্থী রাব্বি বাঁচতে চায়

আপডেট: ডিসেম্বর ৬, ২০১৬, ১২:০৯ পূর্বাহ্ণ

সিংড়া প্রতিনিধি



যে বয়সে স্কুলে যাওয়ার কথা, স্কুলে মাঠে সহপাঠীদের সঙ্গে লাফালাফি আর ছোটাছুটি করে খেলাধুলার করার কথা, সে বয়সে বাবা-মায়ের হাত ধরে ক্লিনিক ও হাসপাতালের ডাক্তারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে। নাটোরের সিংড়া উপজেলার পাকুরিয়া কালাইকুড়ি উচ্চবিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র রাব্বি রব (১৩)। সে ব্লার্ড ক্যান্সারে আক্রান্ত।
স্কুলের মেধাবী ছাত্র হিসেবে শিক্ষকদের কাছে সুপরিচিত রাব্বি। উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে একদিন সেও শিক্ষক হয়ে সমাজকে আলোকিত করতে চায়। ঘুচাতে চায় পরিবারের দরিদ্রতা। কিন্তু হঠাৎ ই যেন সব স্বপ্ন ভেঙে গেলো। তার শরীরে বাসা বেঁধেছে মরণব্যাধি ক্যান্সার। উপজেলার ইটালী ইউনিয়নের মানিকদিঘী গ্রামের মতিউর ও রিনার প্রথম ছেলে রাব্বির চোখে মুখে এখন সব সময় হতাশার ছাপ। যেন প্রাণহীন একটি দেহ। মৃত্যুর প্রহর গুণছে। বর্তমানে আট-নয় মাস ধরে রাব্বি কলকাতার ঠাকুরপুকুর ক্যান্সার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
রাব্বির মা রিনা বেগম বলেন, দুই ছেলেকে নিয়ে খেয়ে না খেয়ে কোনোমতে দিন কাটছিলো আমাদের। ছেলেকে নিয়ে অনেক আশা ছিল। সে শিক্ষিত হবে, আমাদের দুঃখের সংসারে আলো জ¦ালাবে। কিন্তু ছেলের ক্যান্সারের খবর শোনার পর থেকে সব স্বপ্ন শেষ। ছেলের সুচিকিৎসার জন্য রাজশাহী, ঢাকাসহ বিভিন্ন জায়গায় ঘুরেছি। কিন্তু কোথাও তেমন সুফল পাই নি। বর্তমানে আট-নয় মাস ধরে রাব্বি ভারতে চিকিৎসাধীন রয়েছে। সেখানকার ডাক্তাররা বলেছে চিকিৎসার জন্য প্রায় ১৫-২০ লাখ টাকা লাগবে। আমরা গরীব মানুষ, এতো টাকা জোগাড় করার মতো সামর্থ্য আমাদের নাই। রাব্বির বাবা মতিউর রহমান বলেন, জমিজমা যা ছিল সব বিক্রি করে এ পর্যন্ত চিকিৎসার খরচ চালিয়েছি। এখন নিঃস্ব প্রায়। খেয়ে না খেয়ে কোনো মতে দিনাতিপাত করছি। মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য। সমাজের বিত্তবানরা সাহায্য করলে রাব্বির মুখে হাসি ফুটবে। প্রাণ ভরে নিশ্বাস নেবে সে।
তিনি আরো জানান, রাব্বির দরিদ্র পরিবারের পক্ষে এত টাকা খরচ বহন করা সম্ভব নয়। সদা হাস্যোজ্জ্বল রাব্বি হার মানবে কি নিয়তির কাছে? এই পরাজয়ের গ্লাণি কি শুধু তার একার? রাব্বিও চায় পৃথিবীর বুকে বেঁচে থাকতে। সকলের সহযোগিতাই পারে তাকে আবারো স্বাভাবিক জীবন উপহার দিতে। সাহায্য পাঠানো ঠিকানা, হিসাব নম্বর-০০২০৪৯৬৫২ (আ. মালেক, রাব্বির চাচা), সোনালী ব্যাংক, রনবাঘা শাখা, নন্দীগ্রাম। বগুড়া শাখায় আর্থিক সাহায্য পাঠাতে আহ্বান জানিয়েছেন রাব্বির পরিবার (রাব্বির বাবা ০১৭৬৪-৩৮৯৯৩৬)।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ