গুগলের নতুন ১০ সেবা

আপডেট: মে ১৬, ২০১৯, ১২:২৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


২০০৮ সাল থেকে প্রতি বছরই বার্ষিক ডেভেলপার সম্মেলন ‘গুগল আইও’ আয়োজন করে আসছে টেক জায়ান্ট গুগল। চলতি বছরও ব্যতিক্রম ঘটেনি। ক্যালিফোর্নিয়ার মাউন্টেনভিউয়ে গত ৭ থেকে ৯ মে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল গুগল আইও ২০১৯। নতুন যেসব সেবা ও ফিচার অ্যান্ড্রয়েড প্ল্যাটফর্মে আসবে সে সম্পর্কে ধারণা দেয়া হয় সম্মেলনে। গুগলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) সুন্দর পিচাইয়ের উদ্বোধনী বক্তব্যের মধ্য দিয়ে ডেভেলপার সম্মেলন গুগল আইও ২০১৯ সালের পর্দা ওঠে।
চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক এবারের ‘গুগল আইও’ সম্মেলনে কি কি ফিচার বা সেবা সম্পর্কে ঘোষণা আসল।
* গুগল লেন্সে যুক্ত হলো অনুবাদ ফিচার : এ বছরের সম্মেলনে গুগল ‘গুগল লেন্সে’ নতুন কিছু ফিচার যুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছে। গুগল লেন্সের মাধ্যমে চারপাশে তথ্য দেখতে, উচ্চ স্বরে পড়তে এবং অনুবাদ করতে পারবে ব্যবহারকারীরা। ব্যবহারকারীরা ‘গুগল লেন্সে’ যুক্ত যেকোনো ডিভাইসে ১৪টি ভাষায় অনুবাদ করতে পারবে। এই নতুন ফিচার লাখ লাখ ব্যবহারকারীর মধ্য ব্যাপক প্রভাব ফেলবে- বিশেষ করে উন্নয়নশীল দেশগুলোতে। এই ফিচার ব্যবহার করতে মাত্র ১০০ কেবি ডাটা খরচ হবে।
* পরবর্তী প্রজন্মের গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট : ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যাপটিতে বেশ কিছু পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে গুগল। এখন থেকে নেভিগেশন বারে ভয়েস কমান্ড এর উপস্থিতির কারণে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট পর্দার এক তৃতীয়াংশ দখল করে রাখবে না। ওয়েবভিত্তিক সেবার বদলে সরাসরি স্মার্টফোনেই পুরো সিস্টেম থাকবে। নেটওয়ার্কের বাইরে কিংবা এয়ারপ্লেন মোডেও গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট কাজ করবে। আবার গাড়ি চালনার সময় বিশেষ মোড পাওয়া যাবে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টে। আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে এই ফিচারগুলো যুক্ত হবে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টে।
* সহজ হলো গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টের সঙ্গে কথোপকথন প্রক্রিয়া : গুগল হোম বা গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট স্পিকার বা অ্যালার্ম এবং টাইমার চালু বা বন্ধ করার জন্য আমাদেরকে হরহামেশায়ই গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টকে ভয়েস কমান্ড দিতে হয়। তবে এতদিন এই ভয়েস কমান্ড দিয়ে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টকে থামানোটা একটু কষ্টদায়ক ছিল। ইংরেজ ভাষাভাষী দেশগুলোতে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টে চালিত স্পিকার এবং ডিসপ্লে চালু করার মাধ্যমে এই কমান্ড দেয়ার প্রক্রিয়াটিকে আরো সহজতর করতে যাচ্ছে গুগল।
* অ্যান্ড্রয়েড কিউ : অ্যান্ড্রয়েডের প্ল্যাটফর্মের পরবর্তী অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড কিউয়ের বেশ কিছু ফিচার সম্পর্কে ঘোষণা এসেছে এই সম্মেলনে। নতুন অপারেটিং সিস্টেম কিউতে ডার্ক মোড ফিচার থাকবে। ডার্ক মোড ব্যবহারে রাতে ডিভাইস ব্যবহারে চোখে অনেকটা আরাম পাওয়া যায় এবং একই সঙ্গে ফোনের ব্যাটারিও কম খরচ হয়। এছাড়াও অ্যান্ড্রয়েড ‘কিউ’ ভার্সনে এখন থেকে টেক্সট মেসেজ ফেসবুক মেসেঞ্জারের মতো বাবল আকারে স্ক্রিনে ভেসে থাকবে। অ্যাপগুলোর লোকেশন ট্র্যাক করার ক্ষমতাও কমিয়ে আনা হবে নতুন ওএসটির মাধ্যমে। শুধুমাত্র চালু থাকা অবস্থাতেই ব্যবহারকারীর অবস্থান শনাক্ত করতে পারবে অ্যাপগুলো।
* অ্যান্ড্রয়েড আপডেটের গতি বৃদ্ধি পাবে : সিস্টেম আপডেটের গতি বিগত বছরের ধরে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীদের জন্য একটি বড় মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে গুগল আইও ২০১৯ সিস্টেম আপডেটের গতি বিষয়ে খুবই ভালো একটি খবর নিয়ে এসেছে। প্রথমত অ্যান্ড্রয়েড পাই এর সিস্টেম আপডেটের গতি ১০% বৃদ্ধি পেয়েছে। এবং গুগল অ্যান্ড্রয়েড আপডেটের গতি বৃদ্ধি করতে নতুন প্রজেক্ট ‘মেইনলাইন’ হাতে নিয়েছে যেন গুরুত্বপূর্ণ নিরাপত্তা আপডেটগুলোর গতি বাড়ানো যায়।
* পিক্সেল ৩এ ও পিক্সেল ৩এ এক্সএল : পিক্সেল ৩ ও পিক্সেল ৩ এক্সএলের লাইট সংস্করণের নতুন দুটি ফোন উন্মোচন করেছে গুগল। লাইট সংস্করণের ফোন দুটি হলো পিক্সেল ৩এ ও পিক্সেল ৩এ এক্সএল। পিক্সেল ৩এ ফোনটিতে আছে ৫.৬ ইঞ্চি ডিসপ্লে, যার রেজ্যুলেশন ১০৮০ বাই ২২২০ পিক্সেল। প্রসেসর হিসেবে রয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৬৭০। সঙ্গে রয়েছে অ্যাড্রিনো ৬১৫ জিপিইউ। এর ব্যাটারির শক্তি ৩০০০ এমএএইচ, যা ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করবে। ফোনটির রিয়ার ক্যামেরায় আছে ১২.২ মেগাপিক্সেল। সামনে আছে ৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। মেগাপিক্সেল কম হলেও এই ক্যামেরায় নাইট সাইট, টপ শট, সুপার রেস জুম ও এইচডিআর প্লাস ফিচারগুলো কাজ করবে। চিরচেনা নচ নেই লাইট সংস্করণে।
পিক্সেল ৩এ এক্সএল ফোনে আছে ৬ ইঞ্চি ডিসপ্লে, যার রেজ্যুলেশন ১০৮০ বাই ২১৬০ পিক্সেল। প্রসেসর, ক্যামেরা, স্টোরেজ, র‌্যামের ক্ষেত্রে পিক্সেল ৩ এর সঙ্গে পিক্সেল ৩এ এক্সএলের কোনো পার্থক্য নেই। তবে ব্যাটারির শক্তিতে পার্থক্য রয়েছে। এর ব্যাটারি ৩,৭০০ এমএএইচ।
গুগলের নতুন ফোন দুটির দাম সাধ্যের মধ্যে রাখতে মেটাল বডির পরিবর্তে প্লাস্টিক বডি ব্যবহার করা হয়েছে। ডিসপ্লের সামনের অংশে গরিলা গ্লাস না থাকলেও রয়েছে ড্রাগন ট্রেইল। দুটি ফোনই পাওয়া যাবে কালো, সাদা ও বেগুনি রঙে। পিক্সেল ৩এ ফোনটির দাম ৩৯৯ ডলার। পিক্সেল ৩এ এক্সএলের দাম ৪৭৯ ডলার। ইতোমধ্যে ফোন দুটির বিক্রি শুরু হয়েছে।
* গুগল ম্যাপে যুক্ত হলো এআর নেভিগেশন : ছুটির দিনে একটি নতুন শহরের আশেপাশে হাঁটতে এবং মানচিত্রে সে জায়গাটি খুঁজে পেতে অনেক সময়ই বেগ পেতে হয়। তবে গুগল তাদের পিক্সেল ফোনের ‘গুগল ম্যাপ’ অ্যাপে এআর এরো যুক্ত করার মাধ্যমে নেভিগেশনকে সহজতর করতে যাচ্ছে। ব্যবহারকারীরা শুধুমাত্র এই এরো চিহ্নকে অনুসরণ করে যেকোনো অচেনা গন্তব্যেও হাঁটতে পারবেন। খুব শিগগির অন্যান্য স্মার্টফোনেও গুগল ম্যাপে এআর নেভিশেন সুবিধা উন্মুক্ত করা হবে বলে জানা গেছে।
* নেস্ট হাব ম্যাক্স : গুগলের স্মার্ট ডিসপ্লে হোম হাবের নতুন সংস্করণের ঘোষণা এসেছে গুগল আইও সম্মেলনে। নতুন ডিভাইসটির নাম দেয়া হয়েছে নেস্ট হাব ম্যাক্স। এতে থাকবে ১০ ইঞ্চির লম্বা ডিসপ্লে। বিল্ট-ইন ক্যামেরাটি হবে ৬.৫ মেগাপিক্সেলের। এতে দুটি স্টেরিও স্পিকারও থাকবে। ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত নিরাপত্তা নিয়ে যাতে চিন্তা করতে না হয় তা নিশ্চিত করতে সবুজ একটি ইন্ডিকেটর থাকবে। ক্যামেরা চালু আছে কি না, তা এই ইন্ডিকেটর দেখে বুঝতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। ক্যামেরা ও মাইক্রোফোন অফ রাখতে চাইলে ডিভাইসে থাকা একটি সুইচ টিপতে হবে। এতে আবহাওয়ার তথ্য, ইউটিউব ভিডিও, গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট ও নেস্ট সিকিউরিটি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ দেখার ফিচার থাকবে। নেস্ট হাব ম্যাক্সের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২২৯ ডলার।
* ডিজিটাল গেমিং প্ল্যাটফর্ম স্টেডিয়া : এবারের আইও সম্মেলনে নতুন একটি ডিজিটাল গেমিং প্ল্যাটফর্ম এর ঘোষণা দিল গুগল। স্টেডিয়া নামের এই প্ল্যাটফর্মে গেম খেলার মাসিক খরচ কতো হবে সে বিষয়ে এখনো কিছু জানায়নি গুগল।
* কোয়ালকম স্মার্ট হেডফোন : গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টের হেডফোনগুলো খুবই মানসম্পন্ন। তবে এখনও কিছুটা বিরল এবং বেশিরভাগক্ষেত্রেই ব্যয়বহুল। তাই এবার কোয়ালকম স্মার্ট হেডসেট তৈরির পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে গুগল। গুগলের আসন্ন ডিজাইনটি অনুসরণ করে নির্মাতারা এবার খুব সহজেই গুগল অ্যাসিস্যান্ট এবং গুগল ফাস্ট পিয়ার সমর্থনকারী হেডফোনগুলো তৈরি করতে পারবে। তথ্যসূত্র : অ্যান্ড্রয়েড সেন্ট্রাল