গোল্ডেন বুটের দৌড়ে এগিয়ে যারা

আপডেট: জুন ১৪, ২০১৮, ১২:৫৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


রাশিয়ায় ফুটবলের মহাযজ্ঞ শুরু হবার আর চব্বিশ ঘণ্টাও নেই। দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটতে যাচ্ছে রাশিয়া ও সৌদি আরবের উদ্বোধনী ম্যাচের মাধ্যমে। এরই মধ্যে সারা পৃথিবীর ফুটবল প্রেমীরা জল্পনা কল্পনা শুরু করে দিয়েছেন বিশ্বকাপ জয়ী কে হতে পারে তা নিয়ে।
সেই সাথে আছে গোল্ডেন বুট এবং গোল্ডেন বল নিয়ে ভাবনাও। কারা পেতে পারেন গোল্ডেন বুট? সাধারণত পুরো বিশ্বকাপ জুড়ে যার গোল সবচেয়ে বেশি থাকবে তিনিই জিতবেন গোল্ডেন বুট।
এবারের গোল্ডেন বুটজয়ী অনেকের হবার সম্ভাবনাই রয়েছে। এর মাঝে সবচেয়ে এগিয়ে থাকবেন হয়তো নেইমার। ব্রাজিলের প্রাণভোমরা দীর্ঘদিনের ইঞ্জুরি কাটিয়ে দলে ফিরেই দুটি প্রস্তুতি ম্যাচে করেছেন ২ গোল। এর আগে পিএসজির হয়েও ২২ গোল করেছিলেন নেইমার।
এরপর বলা যায় তর্কসাপেক্ষে সময়ের সেরা খেলোয়াড় লিওনেল মেসির কথা। এই বার্সা তারকা বলতে গেলে একাই বিশ্বকাপে নিয়ে এসেছেন আর্জেন্টিনাকে। গেল মৌসুমে সব ধরণের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে সবচেয়ে বেশি গোলও তার।
জার্মানির ফরোয়ার্ড টিমো ওয়ের্নারের কোথাও ফেলে দেয়া যাচ্ছে না। লেইপজিগের হয়ে নিজের সামর্থ্য ইতোমধ্যেই প্রমাণ করেছেন এ জার্মান। তার জন্য জার্মান কিংবদন্তি মিরোস্লাভ ক্লোসার ফেলে যাওয়া জুতোতে পা গলানোর মঞ্চ এটাই।
এরপর আসবে তর্কসাপেক্ষে বর্তমানে সময়ের আরেক সেরা ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর নাম। টানা তিনবার নিজ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদকে ইউরোপ সেরার মুকুট পাইয়ে দিয়েছেন এই পর্তুগীজ। প্রতিবারই ছিলেন আসরগুলোর সর্বোচ্চ গোলদাতা। এই ফুটবল কিংবদন্তি তাই নিজের শেষ (সম্ভাব্য) বিশ্বকাপে নিজের সর্বোচ্চটাই দেবেন।
ইংল্যান্ডের হ্যারি কেইন, পোল্যান্ডের রবার্ট লেওান্ডস্কি এবং ব্রাজিলের গ্যাব্রিয়েল হেসুসও এবার গোল্ডেন বুটের শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী হতে পারেন। তাদের বিগত কয়েক মৌসুমে ক্লাবের পারফর্মেন্স সে দিকেই ইঙ্গিত করে।
এছাড়াও গোল্ডেন বুট জয়ী হতে পারেন ফ্রান্সের কিলিয়ান এমবাপ্পে, স্পেনের ডিয়াগো কস্তা বেলজিয়ামের ইডেন হ্যাজার্ড এবং মিশরের মোহাম্মদ সালাহ। সালাহ ক্লাবের হয়ে দুর্দান্ত এক মৌসুম কাটালেও বিশ্বকাপে তার দল মিশর বলেই হয়তো একটু পিছিয়ে থেকেই গোল্ডেন বুটের রেস শুরু করবেন তিনি।
গোল্ডেন বুট, গোল্ডেন বল, গোল্ডেন গ্লাভস এবং বিশ্বকাপ; এ সব কিছু কারা জিততে পারেন তা জানার জন্য বিশ্বকাপে চোখ রাখতে হবে আগামী এক মাস। তবে বর্তমান ফুটবলের রথী-মহারথীরা যে এই দৌড়ে এগিয়ে থাকবেন তা বলাই বাহুল্য।