চট্টগ্রাম ও চাঁদপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত চার

আপডেট: অক্টোবর ৩০, ২০১৯, ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


চট্টগ্রাম ও চাঁদপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত চার জন নিহত হয়েছে। এর মধ্যে চট্টগ্রামের সীতাকু-ে তিনজন এবং চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে একজন রয়েছে।
চট্টগ্রামের সীতাকু- এলাকায় র‌্যাবের একটি টহল টিমের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তিন জন নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) ভোরে সীতাকু-ের ছোট কুমিরা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। র‌্যাবের দাবি, তারা আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য। র‌্যাব-৭ এর উপ-অধিনায়ক স্কোয়াড্রন লিডার শাফায়াত জামিল ফাহিম এ তথ্য জানিয়েছেন।
ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, ১২ রাউন্ড গুলি ও দুটি ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয় বলে তিনি জানান। তবে ডাকাতদের পরিচয় এখনও পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে র‌্যাব।
শাফায়াত জামিল ফাহিম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ডাকাতির উদ্দেশ্যে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের একটি চক্র ছোট কুমিরা বাজার এলাকায় অবস্থান করছে খবর পেয়ে র‌্যাবের টহল টিম ওই এলাকায় যায়। এ সময় র‌্যাব সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত দলের সদস্যরা গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে ডাকাত দলের সদস্যরা পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থলে তিন জনের মরদেহ পাওয়া যায়। মরদেহগুলো উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।’
চাঁদপুরে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ একজন নিহত
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ অজ্ঞাত পরিচয় এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার ভোরে উপজেলার আনন্দবাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশের দাবি, নিহত ব্যক্তি ডাকাত দলের সদস্য। ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি ও দুটি রামদা উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশের এএসআই মঞ্জুর হোসেন, পুলিশ সদস্য দেলোয়ার হোসেন ও ইসমাইল হোসেন। তারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন।
ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রকিব জানান, এএসআই মঞ্জুর হোসেনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ কড়ৈতলী এলাকায় টহলে যাচ্ছিল। তারা আনন্দবাজার এলাকায় পৌঁছালে বাগান থেকে একদল ডাকাত তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশ সদস্যরাও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা ছুড়লে ডাকাত দল পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে অজ্ঞাত পরিচয় একজনের মরদেহ পাওয়া যায়। একই সঙ্গে একটি এলজি ও দুটি রামদা উদ্ধার করা হয়।
তথ্যসূত্র: বাংলাট্রিবিউন