চাঁদই শুধু পৃথিবী প্রদক্ষিণ করে না: নাসা

আপডেট: নভেম্বর ৯, ২০১৭, ১২:১৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


সম্প্রতি মার্কিন মহাকাশ গবেষণা নাসা জানিয়েছে, পৃথিবীর আকর্ষণে এতদিন শুধু চাঁদই নয় আরও অনেক উপগ্রহ সদৃশ্য গ্রহাণু নিয়মিত প্রদক্ষিণ করে আসছে। এগুলোর মধ্যে একটি গ্রহাণুকে নাসার বিজ্ঞানীরা শনাক্ত করেছেন যেটি অনেকটাই চাঁদের মতো।
বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, সেটি পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করছে শত বছরের বেশি সময় ধরে। কিন্তু এতদিন কোনো বিজ্ঞানীর পক্ষে তা আবিস্কার করা সম্ভব হয়নি।
নাসার বিজ্ঞানীরা আরও জানিয়েছেন, সেই গ্রহাণুটি চাঁদের সমান না হলেও এর আচার আচরণ অনেকটাই উপগ্রহটির সঙ্গে মিলে যায়। তবে চাঁদ যেমন নির্দিষ্ট কক্ষপথে পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করে থাকে, সেটি তেমনটি করে না।
নাসার বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, নতুন আবিস্কৃত চাঁদটি কখনও খুব দ্রুত পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করে আবার কখনও খুব ধিরে। ফলে পৃথিবীকে একবার ঘুরে আসছে চাঁদের মতো সময় সে নেয় না। ফলে সেই গ্রহাণুটি বছরে কতবার পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করে তাও নির্ণয় করা সম্ভব নয়।
নাসার বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, পৃথিবীর মানুষ চাঁদকে যেভাবে খালি চোখেই দেখতে পায় গ্রহাণুটিকে সেভাবে দেখা সম্ভব নয়। বিজ্ঞানীদের মতে, চাঁদকেও পৃথিবীবাসী সম্পূর্ণ দেখতে পায়না। এর একটি অংশ সব সময়ই পৃথিবীর আড়ালে থাকে। ফলে সেই স্থানের দর্শন পেতে স্যাটেলাইট কিংবা রোবটযানই ভরসা।
বিজ্ঞানীরা বলছেন, নতুন খোঁজ পাওয়া এই উপগ্রহটি দেখতে হলে কিছু সাজ সরজ্ঞামের প্রয়োজন রয়েছে। তাছাড়া পৃথিবীর সব জায়গা থেকে তা দেখাও যাবে না। নাসার বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের হালেকালা অঞ্চল থেকে তারা ওই চাঁদ সদৃশ গ্রহাণুটিকে পর্যবেক্ষণ করে আসছেন।
বিজ্ঞানীরা সেটিকে পর্যবেক্ষণ করে জানিয়েছেন, ক্ষুদ্র চাঁদটি পৃথিবীকে কেন্দ্র করে প্রদক্ষিণ করলেও তার চরিত্র স্বাধীন বলেই মনে হয়েছে। আর সেখানেই রহস্যের জন্ম। চাঁদের মতো পৃথিবীর আকর্ষণে যদি সেটি প্রদক্ষিণ করে না থাকে তবে সেটি কিভাবে পরিচালিত হচ্ছে?
এর পেছনের রহস্য নিয়েই বর্তমানে নাসার বিজ্ঞানীরা কাজ করে যাচ্ছেন। তাছাড়া মাত্র শ’খানেক বছর ধরে সেটি পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করার কারণই বা কি? বিজ্ঞানীরা তথ্য উপাত্ত ঘেঁটে দেখেছেন, ক্ষুদ্র চাঁদটি পৃথিবীর কাছ থেকে নিজেকে আড়াল করেই তার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে।