চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা রুটে বনলতার উদ্বোধন আজ

আপডেট: জুলাই ১৭, ২০১৯, ১২:২৪ পূর্বাহ্ণ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি


দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত চাঁপাইনবাবগঞ্জ ঢাকা রুটে চালু হচ্ছে বিরতিহীন ট্রেন বনলতা এক্সপ্রেস। আজ ১৭ জুলাই বেলা সাড়ে ১১টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ ট্রেনের উদ্বোধন করবেন। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ রেলওয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ভিডিও কনফারেন্সে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। রেল স্টেশনকে সাজানো হয়েছে নতুন রূপে। বনলতা এক্সপ্রেস নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে চলছে ব্যাপক প্রচারনা। জেলাবাসী ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এ ট্রেন পেয়ে আনন্দিত ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরে উৎসবমূখর পরিবেশ। ব্যানার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে গোটা শহর।
জানা গেছে, ১৯৩০ সালে বৃটিশ আমলে এ রেল যোগাযোগ শুরু হয়। দেশ স্বাধীনের পর বঙ্গবন্ধু সরকার চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রহনপুর, আমনুরা ও রাজশাহী পর্যন্ত পুনরায় রেলের সংস্কার করেন। ১৯৭৫ পরবর্তী সরকারগুলো রেল সংস্কারে কাজ না করায় মানুষ এক রকম রেলের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল। ২০১১ সালে শেখ হাসিনা নেতৃত্বাধীন সরকার পৃথক রেলমন্ত্রণাল গঠনের মধ্য দিয়ে কাজ শুরু করলে রেল সংস্কারে আসে গতিশীলতা। ২০১১ সালের ২৩ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ ময়দানে চাঁপাইনবাবগঞ্জের জন্য ৭টি বড় বড় প্রকল্পের ঘোষণা দেন। এরমধ্যে শেখ হাসিনা ২য় সেতু, এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজে একাডেমী ভবন ও মাস্টার্স কোর্স চালু, ২৫০ শয্যার সদর হাসপাতাল, পদ্মার বামতীর বাঁধ নির্মাণ, আন্তঃনগর ট্রেন, পাগলা নদী খনন ও মহানন্দা নদীতে রাবার ড্যাম নির্মাণ প্রকল্পটির টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। অর্থাৎ চাঁপাইনবাবগঞ্জে শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুত সকল প্রকল্পগুলো প্রায় সমাপ্তির পথে।
বাংলাদেশ রেলওয়ে রাজশাহী অঞ্চলের জেনারেল ম্যানেজার খন্দকার শহীদুল ইসলাম জানান, বর্তমানে চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৬টি ট্রেন নিয়মিত যাত্রীসেবা দিচ্ছে। আন্তঃনগর ট্রেনের জন্য ২০১০ সালে প্রায় ১৫০ কোটি টাকা ব্যয় করে রাজশাহী, আমনুরা, রহনপুর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ পর্যন্ত রেল লাইন সংস্কার এবং আমনুরায় ২০ কোটি ব্যয়ে বাইপাস রেল লাইন নির্মাণ করা হয়েছে।
জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক সান্তনা হক বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা মুখে যা বলেন কাজে তা প্রমাণ করেন। বিরতিহীন ট্রেন বনলতা এক্সপ্রেস জেলাবাসীর চাওয়া পূরণ করল।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব মনিরুজ্জামান মনির বলেন, আন্তঃনগর ট্রেনের দাবিতে তিনি দীর্ঘ দিন ধরে আন্দোলন করেছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা বিরতিহীন ট্রেন বনলতা এক্সপ্রেস এর চলার পথ সুগম করায় জেলাবাসীর পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানাচ্ছি।
চাঁপাইনবাবগঞ্জে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি আবদুল ওদুদ বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে তিনি ১০টি বড় বড় প্রকল্প জমা দিয়াছিলেন যার বেশির ভাগই বাস্তবায়ন করা হয়েছে এবং রাবার ড্যাম চলতি মাসেই উদ্বোধন হবে। বর্তমান সরকার চাচ্ছে রেলওয়ে সম্প্রসারণ নেটওর্য়াক এরই ধারাবাহিকতায় আজকের বনলতা এক্সপ্রেস। এছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসীর জন্য এ ট্রেনে এসি ও নন এসি মিলিয়ে ২৬২টি আসন বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ শিবগঞ্জ আসনের এমপি ডা. সামিল উদ্দীন আহমেদ শিমুল বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার উন্নয়নের যে সব প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তা শত ভাগ পূরণ হয়েছে। জনগণের দাবি চাঁপাইনবাবগঞ্জ-সোনামসজিদ স্থলবন্দর পর্যন্ত রেল লাইন সম্প্রসারণ করা হলে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে আম, পাথরসহ সকল পণ্য দেশের বিভিন্ন স্থানে কম খরচে পৌঁছান সম্ভব এবং মহাসড়কে যানবাহনের চাপ কমবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ