চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ৩টি কুরিয়ার সার্ভিসকে আম পরিবহনের অনুমতি

আপডেট: June 3, 2020, 1:16 pm

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :


আম মৌসুমে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা থেকে আম পরিবহনের জন্য ৩টি কুরিয়ার সার্ভিসকে অনুমতি দিয়েছে জেলা প্রশাসন। অনুমতিপ্রাপ্ত কুরিয়ার সার্ভিসগুলো হচ্ছেথ এ জে আর পার্সেল এন্ড কুরিয়ার, ইউএসবি এক্সপ্রেস কুরিয়ার ও জেএইচ পার্সেল কুরিয়ার। অন্যদিকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র হালনাগাদ না থাকায় সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস, এস.এ পরিবহনসহ অন্যান্য কুরিয়ার সার্ভিস-এর সকল কার্যক্রম স্থগিত রাখার জন্য বলা হয়েছে। তারপরও কুরিয়ার সার্ভিসগুলো প্রশাসনের নির্দেশনা অমান্য করে কার্যক্রম চালাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতিতে আম মৌসুমে যথাযথ নিয়ম মেনে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন জেলায় আম পাঠানোর লক্ষে গত সোমবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে কুরিয়াার সার্ভিস পরিচালক/প্রতিনিধিদের সাথে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় জেলা প্রশাসন কাগজপত্র হালনাগাদ থাকায় এ জে আর পার্সেল এন্ড কুরিয়ার, ইউএসবি এক্সপ্রেস কুরিয়ার ও জেএইচ পার্সেল কুরিয়ার সার্ভিসকে আম পরিবহন কার্যক্রম পরিচালনার অনুমতি দেয়া হয়। তবে সভায় সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস, এসএ পরিবহনসহ অন্যান্য কুরিয়ার সার্ভিসের হালনাগাদ কাগজপত্র জমা না দেয়া পর্যন্ত সকল কার্যক্রম স্থগিত রাখার জন্য নির্দেশনা দেয় জেলা প্রশাসন।
আলোচনা সভায় বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক একেএম তাজকির-উজ-জামান। এসময় অভ্যন্তরীণ কুরিয়ার সার্ভিস প্রতিনিধিসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) একেএম তাজকির-উজ-জামান বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বৈধ কাগজপত্র থাকায় জেলা থেকে আম পরিবহনসহ অন্যান্য কার্যক্রম চালানোর জন্য ৩টি কুরিয়ার সার্ভিসকে অনুমতি দিয়েছে জেলা প্রশাসন। এছাড়া অবৈধভাবে চালানো সকল কুরিয়ার সার্ভিসকে কার্যক্রম বন্ধ রাখার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। শুধুমাত্র সুন্দরবন কুরিয়ার মঙ্গলবারের মধ্যে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দেয়ার কথা জানালেও, তারা জমা দিতে পারেনি। তিনি আরও বলেন, সরকারের চোখে ফাঁকি দিয়ে কোনো কুরিয়ার সার্ভিস তাদের কার্যক্রম জেলায় চালাতে পারবে না। বৈধ কাগজপত্র দিয়েই এবং বৈধভাবেই কুরিয়ার সার্ভিসের কার্যক্রম চালাতে পারবে। তিনি আরও বলেন, সভায় ঢাকা জেলার জন্য ১০ টাকা এবং অন্যান্য জেলার জন্য আম পরিবহন খরচ ১৪ টাকা ধার্য করে পরিবহন খরচ নির্ধারণ করে দেয়া হয়। কোনো কুরিয়ার পরিবহন খরচের অতিরিক্ত পরিবহন খরচ নিলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথাও বলা হয় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে।