চেন্নাইনের বিপক্ষে নিখুঁত খেলার লক্ষ্য চোট জর্জর আবাহনীর

আপডেট: মে ১৫, ২০১৯, ১২:৫৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


চোটের কারণে এরই মধ্যে মৌসুম শেষ হয়ে গেছে নির্ভরযোগ্য ডিফেন্ডার তপু বর্মন ও মিডফিল্ডার আতিকুর রহমান ফাহাদের। একই কারণে টুটুল হোসেন বাদশাও গত চার ম্যাচ দলের বাইরে। হালকা চোট আছে ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার ওয়েলিংতন সেরিনো প্রিওরি এবং ওয়ালী ফয়সালের। চোট জর্জর দল নিয়ে চেন্নাইন এফসির মুখোমুখি হওয়ার আগে আবাহনী লিমিটেড কোচ মারিও লেমোস জানালেন নিখুঁত খেলার লক্ষ্য তাদের।
বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আজ বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় এএফসি কাপে ‘ই’ গ্রুপে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে মুখোমুখি হবে দুই দল। দুই জয় ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে চেন্নাইন এফসি। একটি করে জয়, ড্র ও হারে ৪ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আবাহনী।
আবাহনীর হারটি ভারতের চেন্নাইনের বিপক্ষেই। গত এপ্রিলে প্রতিপক্ষের মাঠে ৭৯তম মিনিটের আত্মঘাতী গোলে হেরেছিল বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়নরা। এবার নিজেদের মাঠে খেলা এবং প্রস্তুতির জন্য সময় পাওয়ায় চোটাক্রান্ত দল নিয়েও আশাবাদী লেমোস।
“যদি বলি তপু ও ফাহাদকে মিস করব না, তাহলে সেটা মিথ্যা বলা হবে। জাতীয় দলের এই দুই খেলোয়াড় আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। ফুটবলে ইনজুরি হবে। কিন্তু এটা দুর্ভাগ্যজনক যে চোট তাদের মৌসুম শেষ করে দিয়েছে। কিন্তু আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।”
“কালকের ম্যাচের জন্য কে কে প্রস্তুত আছে তা এখনও জানি না। তপু-ফাহাদ খেলতে পারবেই না। এর বাইরেও দুই-তিনজনের চোট আছে। ওয়েলিংতন হয়তো খেলতে পারবে। বাদশার ব্যাপারটা আসলে নিশ্চিত না। ও মাত্রই অনুশীলন শুরু করেছে।”
“কিন্তু ম্যাচটাকে আমরা ফাইনাল হিসেবে নিচ্ছি। শেষ তিনটি ম্যাচে আমাদের ডিফেন্ডাররা ভালো খেলেছে। বিশেষ করে চেন্নাইনের বিপক্ষে ম্যাচে তারা খুব বেশি সুযোগ দেয়নি। ট্রানজিশন পিরিয়ডে আমরা কিছুটা পিছিয়ে থাকি। এই সময়ে আমাদের আরও বেশি নিখুঁত হতে হবে।”
চেন্নাইনের বিপক্ষে প্রথম লেগে অনেক ঝক্কি-ঝামেলা পেরিয়ে শেষ মুহূর্তে দলে যোগ দিয়েছিলেন লিগে ১০ গোল করা সানডে চিজোবা। নাইজেরিয়ান এই ফরোয়ার্ড ভাগ্য গড়ে দিতে পারেননি। আরেক ফরোয়ার্ড নাবীব নেওয়াজ জীবনও হতাশ করেন। নিজেদের মাঠে ফরোয়ার্ডদের আরও নিখুঁত হওয়ার আহ্বান কোচের।
“কালকের ম্যাচ জিততে হলে আক্রমণে আরও নিখুঁত হতে হবে আমাদেরকে। চেন্নাইন গত ম্যাচে তেমন কোনো সুযোগ পায়নি। একটা হাফ চান্স পেয়েছিল এবং সেটাই কাজে লাগিয়েছিল। এ ধরনের দলের বিপক্ষে খেলতে গেলে আপনাকে পারফেক্ট হতে হবে।”
লিগে ৯ গোল করা ফরোয়ার্ড জীবনও মঙ্গলবারের সংবাদ সম্মেলনে জানালেন আগের ম্যাচের ভুলগুলো নিয়ে কাজ করেছেন তারা।
“সুযোগ নষ্ট হওয়া নিয়ে কোচ কাজ করেছে। আমরা আগের ম্যাচগুলোতে তিন-চারটা সুযোগ পেয়েছিলাম। সেগুলো কাজে লাগাতে পারলে এমন পরিস্থিতির মধ্যে পড়তে হতো না। আশা করছি, এই ম্যাচে ভালো করতে পারবো।“ গ্রুপ পর্বের গত তিনটি ম্যাচই চেন্নাইন খেলেছে নিজেদের মাঠে। আবাহনী ম্যাচ দিয়ে অ্যাওয়ে মাঠে যাত্রা শুরু করা দলটির কোচ জন গ্রেগরি সমীহ করতে ভোলেননি প্রতিপক্ষকে।
“নিজেদের মাঠে আমরা গত তিন ম্যাচই অপরাজিত থেকেছি। সামনে আমাদের খুবই কঠিন একটা ম্যাচ রয়েছে। আমরা জানি আবাহনী অনেক ভালো খেলছে। আমাদের মাঠেও তারা দুই সপ্তাহ আগে ভালো খেলেছে। আমার মনে হয় সম্ভবত গ্রুপের সবচেয়ে কঠিন ম্যাচটি কাল খেলতে যাচ্ছি আমরা।”
“গত ম্যাচে আমরা জিতেছিলাম; আসলে কিছু ভাগ্যের সহায়তাও পেয়েছিলাম। আমরা সামনের দিকে তাকিয়ে আছি। আশা করি, আমরা আরও কিছু পয়েন্ট আদায় করে নিতে পারব।”