জঙ্গি অভিযানের জন্য রোবট বানানোর প্রতিযোগিতা

আপডেট: ডিসেম্বর ৭, ২০১৭, ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


জঙ্গি আস্তানার বাইরে অবস্থান নিয়ে আছে নিরাপত্তা বাহিনী। আর ভেতরে নানা বিস্ফোরক দ্রব্য আর অস্ত্র নিয়ে আছে জঙ্গিরা। ২০১৬ সালের হলি আর্টিজান হামলাসহ সাম্প্রতিক সময়ে এমন ঘটনা দেখা গেছে একাধিকবার।
এমন পরিস্থতিতে রোবটের ব্যবহার হয়তো অপারেশনগুলো কার্যকর করতে নিরাপত্তা বাহিনীদের সহায়তা করতে পারে। এই ধারণা মাথায় রেখে আয়োজন করা হচ্ছে এ ধরনের পরিস্থিতে সহায়তা করবে এমন রোবট তৈরির প্রতিযোগিতা। ২১-২২ ডিসেম্বর সিলেট এ অবস্থিত নর্থ ইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই সোসাইটির আয়োজনে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘পূবালী ব্যাংক টেকহান্ট-২০১৭’ উৎসব। এই আয়োজনের প্রথম দিন ২১ ডিসেম্বর সকাল ৯টা থেকে শুরু হবে এ রোবট তৈরির প্রতিযোগিতা, বলা হয়েছে আয়োজকদের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে। এই প্রতিযোগিতায় রোবটকে কিছু বাঁধা পেরিয়ে একটি ঘরের দরজার সামনে থেকে ফেলে রাখা বোমাসদৃশ কোনো বস্তু সরিয়ে অন্য আরেকটি নিরাপদ স্থানে রেখে আসতে হবে। তারপর দরজা খুলে দিতে হবে যেন ভেতরে কেউ থাকলে নিরাপদে বেরিয়ে আসতে পারেন। বাস্তব সমস্যার মতো এখানেও রোবটের উপরে থাকা ক্যামেরার ভিডিও দেখে দূর থেকে রোবট নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। এক্ষেত্রে ভিডিও ক্যামেরা আয়োজকদের পক্ষ থেকেই দেওয়া হবে।
এতে একটি অ্যারেনা দেওয়া হবে যেখানে ‘রাফ-টেরেইন জোন’, ‘ল্যান্ডমাইন জোন’, সিঁড়ি , বোমা-নির্দিষ্ট স্থানে সরানো, দরজা খোলার মতো বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ থাকবে। রাফ-টেরেইন জোনে কিছু ভাঙ্গা ইট-সুরকির মত জায়গা রোবটকে পার হয়ে যেতে হবে। ল্যান্ডমাইন জোনে মাইন এড়িয়ে নিরাপদে পার হতে হবে। সিঁড়ি দিয়ে উঠে দরজার সামনে রাখা লাল রঙের বোমা ধরে উঠিয়ে একটু দূরে রাখা বালুভর্তি বালতিতে ফেলতে হবে।
প্রত্যেক দলকে দুটি রাউন্ড খেলতে হবে। পয়েন্ট এর ভিত্তিতে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় বিজয়ী নির্বাচিত হবে। পুরস্কার হিসেবে থাকবে ৪০ হাজার, ৩০ হাজার এবং ২০ হাজার টাকা। এছাড়া চ্যাম্পিয়ন দলকে ক্রেস্ট প্রদান করা হবে।
আয়োজকরা বলেন, “এ প্রতিযোগিতা তরুণ রোবট নির্মাতাদের নিজেদের দেশের সমস্যা নিয়ে ভাবার একটি প্লাটফর্ম দেবে।”-বিডিনিউজ