জমজমাট এখন টুপি আতরের বেচাবিক্রি

আপডেট: জুন ৩, ২০১৯, ১:০৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


ঈদের শেষ মুহূর্তে টুপির দোকানে ক্রেতাদের ভিড় সোনার দেশ

পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে জমজমাট এখন আতর, টুপি সুরমার বেচাবিক্রি। নগরীর সাহেব বাজারের কয়েকটি দোকান ঘুরে দেখা যায়, ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়। বর্তমানে মোটামুটি বাজার জমলেও ব্যবসায়ীরা জানালেন, চাঁদ রাতে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হবে টুপি ও আতর।
নগরীর সাহেববাজারের বিক্রেতারা জানালেন, বর্তমানে দেশি-বিদেশি আতর এবং টুপি বিক্রি বেশি করা হচ্ছে। বিদেশি টুপির চেয়ে দেশি টুপির বিক্রি বেশি। তবে আতরের বিষয়ে বিদেশি আতর বিক্রি বেশি হচ্ছে। এর মাঝে আরব আমিরাত, সৌদি আরব, ভারত পাকিস্তানের পণ্য উল্লেখযোগ্য। বিক্রেতারা আরো জানালেন, জোহর, আসর, ও ইফতারের পরে ক্রেতাদের পদচারণা সবচেয়ে বেশি। এই সময় মূলত বেশি বিক্রি হয়।
সাহেববাজারের আতর টুপি বিক্রেতা মনির জানান, এখন বেচাকেনা অনেক ভালো। প্রতিদিনে প্রায় ২৩০ থেকে ২৫০ টি টুপি বিক্রি হচ্ছে। এর মাঝে ইন্ডিয়ান, দুবাই, সৌদির আতর বেশি চলছে। প্রতি পিছ টুপি বিক্রি হচ্ছে, ৫০ টাকা থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত। আর আতর বিক্রি হচ্ছে, ৫০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত। চাঁদ রাতের সময় সবচেয়ে বেশি বিক্রি করি আমরা।
ব্যবসায়ী বেলাল জানান,‘এখন ভালো ভাবেই বিক্রি শুরু হয়েছে। প্রতিদিন ১০০ থেকে ১৫০ টি টুপি বিক্রি করছি। আমার এখানে প্রতিটি টুপি ৫০ থেকে ২২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর আঁতর ৫০ থেকে ১০০ টাকা’।
ক্রেতা ফারহান ও মুরাদ তারা জানালেন, এখন ঈদ বলে কথা- সকল কেনাকাটা প্রায় শেষ। এখন নতুন টুপি ছাড়া কি ঈদ হয়। তাই টুপি ও আতর কিনলাম। ঈদের নামাজ পড়ার আগেই আঁতর দিয়ে টুপি পড়ে নামাজে যাবো।
ছেলের জন্য টুপি কিনতে এসেছেন তানজিলা আকতার তিনি জানালেন,‘আমার ছেলের বয়স পাঁচ বছর। তার লাল পাঞ্জাবি আর সাদা পায়জামা কেনা শেষ তাই তার সাথে মিল করে একটি সবুজ টুপি নিলাম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ