জাবিতে হামলার প্রতিবাদে মহাসড়ক অবরোধ || আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের লাঠিচার্জ, আটক ১

আপডেট: নভেম্বর ৬, ২০১৯, ১:০৪ পূর্বাহ্ণ

রাবি প্রতিবেদক


জাবি বন্ধের প্রতিবাদে নগরীতে মানববন্ধনকালে পুলিশ এক ছাত্রকে গ্রেফতার করে-সোনার দেশ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয়ে (জাবি) উপাচার্যের অপসারণ দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীর উপর হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করেছে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এসময় আন্দোলনরতদের ওপর লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ। ঘটনাস্থলে ৫-৭ জন আহত হন ও একজনকে আটক করে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিশ^বিদ্যালয়ের প্রধান সড়কে এ ঘটনা ঘটে।
আটককৃত শিক্ষার্থীর নাম আব্দুল্লাহ শুভ। তিনি নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী বলে জানা গেছে।
এ বিষয়ে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান বলেন, আন্দোলনকারীরা সড়ক অবরোধ করেছিলো। তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। কোন ধরনের হামলার ঘটনা ঘটেনি।
বিশ^বিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘আন্দোলনকারীদের ওপার লাঠিচার্জে হয়েছে কিনা সে বিষয়ে বলতে পারছি না। তবে শিক্ষার্থীরা প্রধান সড়ক অবরোধ করলে পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়।’
এরআগে বিকেল ৫টায় রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের (রাবি) প্রধান ফটকের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন তারা। এক পর্যায়ে মানববন্ধনে ‘রাবি দুর্নীতি বিরোধী শিক্ষক সমাজ’ একাত্বতা প্রকাশ করেন।
মানববন্ধনে আইন ও ভূমি প্রশাসন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক বিশ^জিৎ চন্দ বলেন, ‘দেশের সকল অনিয়মের ইজারা যেন ছাত্রলীগ নিয়েছে। এমন কোন শিক্ষাঙ্গন নেই যেখানে ছাত্রলীগ অনিয়মের সাথে জড়িত নাই। আজ দেশে এমন পরিস্থিতি দাঁড়িয়েছে যেখানে অন্যায়ের প্রতিবাদ করা যায় না, ন্যায্য অধিকারের কথা বলা যায় না। সীমাহীন দুর্নীতির কারণে দেশে শিক্ষার পরিবেশ আজ ধ্বংসের সম্মুখীন। ছাত্র নামধারী ছাত্রলীগ সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষে কথা বলে না। দূর্নীতিবাজ প্রশাসনের সাফাই গেয়ে তারা আজ প্রশাসনের পেটোয়া বাহিনীর ভূমিকা নিয়েছে। এভাবে কোন বিশ্ববিদ্যালয় চলতে পারে না। অবিলম্বে প্রশাসনকে এসব চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের বিচারের আওতায় এনে শিক্ষাঙ্গনের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে।’
বক্তারা আরও বলেন, ‘জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসিবিরোধী আন্দোলনে সরকারের মদদপৃুষ্ট সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে ৩৫ জনকে আহত করেছে। এমনকি তারা জাতির বিবেক শিক্ষকদের গায়েও হাত দিয়েছে। তারা কিসের ছাত্র? ছাত্রলীগ বাদ দিয়ে তারা শুধু লীগ নাম রাখুক। তাদের কারণে পুরো ছাত্রসমাজ এ কলঙ্কের দায়ভার নেবে না। আমরা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালযের ভিসির অপসারণ চাই। আমরা সকল অনিয়মের বিরুদ্ধে কথা বলবো এবং এ ন্যক্কারজনক ঘটনার বিচার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাব।’
উল্লেখ্য, দুর্নীতির অভিযোগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। হামলায় আট জন শিক্ষক, সাংবাদিকসহ অন্তত ২৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার আন্দোলনে নামে রাবির শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ