জয়পুরহাটের মন্তেজার মাস্টারের উৎপাদিত কেঁচো সারের খ্যাতি

আপডেট: জানুয়ারি ৩, ২০১৮, ১:০৫ পূর্বাহ্ণ

জয়পুরহাট প্রতিনিধি


জয়পুরহাটের অবসরপ্রাপ্ত স্কুলশিক্ষক মন্তেজার মাস্টারের উৎপাদিত উৎকৃষ্টমানের কেঁচো জৈব সার-সোনার দেশ

জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার বাঘাপাড়া গ্রামে একজন অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষকের উদ্যোগে শুরু হয়েছে উৎকৃষ্ট মানের কেঁচো জৈব সার উৎপাদন। এখন জেলাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে মন্তেজার মাস্টারের কেঁচো সারের ব্যবহারে চাষিরা অধিক ফসল উৎপাদন করে লাভবান হচ্ছেন।
জানা গেছে, জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার বাঘাপাড়া গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষক মন্তেজার মাস্টার এসো নামের স্থানীয় একটি এনজিওর কারীগরি ও ঋণ সহায়তায় এই জৈব সার তৈরি শুরু করেন গত বছর। কৃষি ভিত্তিক জমির উর্বরা শক্তির নিয়ামক এই কেঁচো সার কৃষকদের জন্য আর্শিবাদ হয়ে দেখা দেয়ায় তারা অধিক উৎপাদনে তাদের ভাগ্য ফেরাতে পারছেন। কেঁচো সার উৎপাদনকারী মন্তেজার রহমান জানান, তিনি এই সার উৎপাদন করে তার ভাগ্যের চাকা ঘুরাতে সক্ষম হয়েছেন। প্রতি কেজি কেঁচো সার ২০ টাকা দরে বিক্রি করে তিনি দেড় থেকে ২ টাকা লাভ করেন। আর ১০০ কেজিতে তার লাভ হয় ১৫০-২০০ টাকা। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এ সারের কদর বৃদ্ধি পাওয়ায় তার আশাব্যঞ্জক মুনাফা অর্জন হচ্ছে। বাঘাপাড়া গ্রামের হাফজার, নিশ্চিন্তা গ্রামের হেলালসহ অনেক কৃষক জানান, মন্তেজার মাস্টারের কেঁচো সার ব্যবহারে তারা ভালো ফলন পাচ্ছেন। ধান, পাঠ, সরিষা, শাক-সবজিসহ সকল চাষাবাদেই এই জৈব সার খুবই কার্যকরী এবং তারা অধিক উৎপাদন করে অধিক মুনাফা অর্জন করতে পারছেন। কেঁচো সার উৎপাদনে সহায়তাদানকারী স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এসোর নির্বাহী পরিচালক মতিনুর রহমান জানান, মন্তেজার মাস্টারকে এ ব্যাপারে প্রশিক্ষন দেওয়ার পর এই এনজিও থেকে ঋণ ও কারিগরি সহায়তা দিয়ে তারা তাকে কেঁচো সার তৈরির একটি খামার তৈরি করে দিয়েছেন। ভূমির উবর্রতা ও ফলন বৃদ্ধিকারক এই জৈব সারটি অল্প সময়ের মধ্যে কৃষকদের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে বলেও দাবি তিনি।
জয়পুরহাট কৃষি সম্প্রসারন অধিদফতরের উপ-পরিচালক সুধেন্দ্রনাথ রায় জানান, কেঁচো সার উৎকৃষ্ট মানের প্রাকৃতিক গুনাগুন সমৃদ্ধ একটি জৈব সার যা অবশ্যই পরিবেশ বান্ধব। এই আদর্শ জৈব সার ব্যবহারে এক দিকে উৎপাদিত ফসলের ফলন যেমন ভালো হয় তেমনি অন্যদিকে প্রাকৃতিকভাবে জমির উৎপাদন ক্ষমতাও বৃদ্ধি পায়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ