টাকার জন্য সেরাদের তালিকায় নেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়!

আপডেট: মে ১৯, ২০১৯, ১২:১৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাণিজ্য অনুষদের ডিন প্রফেসর শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম দাবি করেছেন, লন্ডন-ভিত্তিক জরিপ পরিচালনাকারী সংস্থার আর্থিক দাবি মেটাতে না পারার কারণেই প্রাচ্যের অক্সফোর্ডখ্যাত প্রতিষ্ঠানটির নাম এশিয়ার সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় আসেনি। লন্ডনে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এই দাবি করেন। উল্লেখ্য, সম্প্রতি উচ্চশিক্ষা সংক্রান্ত এক স্বনামধন্য ব্রিটিশ সাময়িকীর উদ্যোগে পরিচালিত জরিপ থেকে এশিয়ার চার শতাধিক সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের যে তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে, তাতে বাংলাদেশের কোনও বিশ্ববিদ্যালয় স্থান পায়নি।
লন্ডন-ভিত্তিক সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন ‘টাইমস হায়ার এডুকেশন’ তাদের পরিচালিত জরিপের ভিত্তিতে এশিয়ার ৪১৭টি সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি তালিকা প্রকাশ করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর পাঠদান, গবেষণা, জ্ঞান আদান-প্রদান এবং আন্তর্জাতিক দৃষ্টিভঙ্গি- এই চারটি মৌলিক বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে পরিচালিত ওই জরিপে চীনের ৭২টি, ভারতের ৪৯টি, তাইওয়ানের ৩২টি, পাকিস্তানের ৯টি, হংকংয়ের ৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম থাকলেও সেখানে বাংলাদেশের কোনও বিশ্ববিদ্যালয় স্থান পায়নি।
শুক্রবার লন্ডনে ঢাকা ইউনিভার্সিটি এ্যালামনাই ইউকে’র সাথে মতবিনিময়কালে প্রফেসর শিবলী বলেন, পাঠদান, গবেষণা, জ্ঞান আদান-প্রদান এবং আন্তর্জাতিক দৃষ্টিভঙ্গির ক্ষেত্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মান নিয়ে কোনও প্রশ্ন নেই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কোন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান নয়, প্রতিযোগিতা করেই শিক্ষার্থীরা এখানে ভর্তি হতে চায়, এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীদের আকৃষ্ট করতে র‌্যাঙ্কিং-এর প্রয়োজন হয় না। তাই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ র‌্যাঙ্কিং-এর বিষয়টিকে খুব একটা গুরুত্বের সাথে বিবেচনায় নেয়নি।
মতবিনিময় সভায় প্রফেসর শিবলী দাবি করেন, লন্ডনভিত্তিক যে প্রতিষ্ঠানটি এই জরিপ পরিচালনা করেছে সেই সংস্থাটির প্রস্তাব অনুযায়ী সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকাভূক্ত হতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে ৪৫ হাজার পাউন্ড অর্থ চাওয়া হয়েছিল। এর পাশাপাশি বাৎসরিক আরও ১৫ হাজার পাউন্ড পরিশোধের প্রস্তাব দিয়েছিল তারা। ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এই অর্থ, শিক্ষা ও গবেষণা খাতে ব্যয় করতে বেশী আগ্রহী হওয়ার কারণে তাদেরকে অর্থ দেওয়া হয়নি। সে কারণেই সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় নাম আসেনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের।’ তবে বিশ্বব্যাপী এ ধরনের র‌্যাঙ্কিংয়ের গুরুত্ব থাকার কথা বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে আগামী বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এই খাতে বাজেট বরাদ্দ রাখার ঘোষণা দেন শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম ।
মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ব্যারিস্টার আনিস রহমান। সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও থার্ড সেক্টর কনসালটেন্ট বিধান গোস্বামীর পরিচালনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, এ-আরবি গ্লোবাল ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও ঢাকা ইউনিভার্সিটি এ্যালামনাই ইউএস এর আহবায়ক নিজাম চৌধুরী, অনুষ্ঠানের সমন্বয়কারী একাত্তর টেলিভিশনের যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি ও সংগঠনের কালচারাল সেক্রেটারী তানভীর আহমেদসহ অনেকে।
মতবিনিময় সভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক প্রতিনিধিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকিং এন্ড ইন্স্যুরেন্স বিভাগের অধ্যাপক ডক্টর মোহাম্মদ মাইন উদ্দীন, সহকারী অধ্যাপক তাসনিমা খান ও সাদিয়া নূর, ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্টের সহকারী অধ্যাপক কামরুল হাসান ও মোহাম্মদ কামরুজ্জামান, আইবিএ’র অধ্যাপক খালিদ। ব্রিটেনে অধ্যয়নরত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও সাসেক্স বিশ্ববিদ্যালয়ের রিসার্চ ফেলো সাইফুল আলম চৌধুরী, ফার্মেসী বিভাগের প্রভাষক ও ইউসিএল বিশ্ববিদ্যালয়ের পিএইচডি গবেষক এ এস এম মনজুর হোসেন শিপলু, ফার্মেসী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও ইম্পেরিয়াল কলেজের রিসার্চ ফেলো উত্তম কুমার, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রভাষক ও লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়ের রিসার্চ ফেলো এজাজুল হক ও কমনওয়েলথ শেভেনিং স্কলার চ্যানেল আই বাংলাদেশের সিনিয়র সাংবাদিক মশরুর শাকিল।
আলোচনাকালে বক্তারা যুক্তরাজ্যে বেড়ে ওঠা তরুণ প্রজন্মের মেধাবি শিক্ষার্থীরা যেন তাদের পেশাগত দক্ষতা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য কাজে লাগাতে পারে সেই সুযোগ সৃষ্টির ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ