টেস্ট পরীক্ষায় ১৬ শিক্ষার্থী ফেল করায় ঈশ্বরদীতে শিক্ষকের ঘর পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

আপডেট: নভেম্বর ৯, ২০১৭, ১২:২৬ পূর্বাহ্ণ

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি


এএসসি’র টেস্ট পরীক্ষায় ১৬ শিক্ষার্থী অকৃতকার্য হওয়ার জের ধরে পাবনার ঈশ্বরদীর বাঘইল স্কুল অ্যান্ড কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক আকমল হোসেনের প্রাইভেট পড়ানোর ঘর পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। ওই শিক্ষক মাঝে-মধ্যে ওই ঘরে রাত্রিযাপনও করতেন। গত মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে উপজেলার পাকশী ইউনিয়নের বাঘইল গ্রামের কেন্দ্রীয় গোরস্থানের পাশে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় শিক্ষক বাড়িতে ছিলেন না। গতকাল বুধবার সকালে পাকশী শহর পুলিশের উপ-পরিদর্শক আলমগীর হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
শিক্ষক আকমল হোসেন জানান, ২০১৮ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ১০৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৯৩ জন কৃতকার্য হয় আর অকৃতকার্য হয় ১৬ জন। টেস্ট পরীক্ষায় ১৬ জন শিক্ষার্থী ফেল করায় এদের মধ্যে বেশ কয়েকজন ওই শিক্ষকের প্রতি বিক্ষুব্ধ হয়। গত মঙ্গলবার ০১৮৫৪৯৭৪৩০৪ নম্বর মোবাইল থেকে তাকে ফোন করে এসব পরীক্ষার্থীদের পাস না করানোর কথা উল্লেখ করে নানারকম হুমকি দেয়। তিনি এতে ভয় পেয়ে রাতে তার প্রাইভেট পড়ানোর ঘরে তালা মেরে শহরের ভাড়া বাসায় চলে যান।
স্থানীয়রা জানান, গভীর রাতে একদল দুর্বৃত্ত্ব ওই শিক্ষকের ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়। আগুনে ঘরের সমস্ত আসবাবপত্র, স্কুলের পরীক্ষার খাতাসহ প্রচুর বই-খাতা পুড়ে ভষ্মিভুত হয়। এ ঘটনায় শিক্ষক আকমল হোসেন ঈশ্বরদী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পাকশী শহর পুলিশের উপ-পরিদর্শক আলমগীর হোসেন বলেন, শিক্ষক আকমল হোসেন একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন, আমরা অভিযোগ তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ