ডাক্তারের দায়িত্ব-জ্ঞানহীন মন্তব্য || আইনি ব্যবস্থা নেয়া হোক

আপডেট: জানুয়ারি ৬, ২০১৮, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ণ

শিক্ষিত মানুষ মাত্রেই জ্ঞান দ্বারা পরিচালিত হবে, প্রজ্ঞা দ্বারা সিদ্ধান্ত নিবেনÑ এমনটিই হবার কথা। কিন্তু কথিত শিক্ষিত ও দায়িত্বশীল মানুষেরা এমন কিছু কথা ও কাজ করেন তা সত্যিই অবাক করার মত। তার শিক্ষা, জ্ঞান-গরিমা প্রশ্নবিদ্ধ হয়। খুব সাধারণ অজ্ঞান মানুষের সাথে তুলনা করেও তাদের অবস্থান নির্ধারণ করা কঠিন হয়ে পড়ে।
দেশবাসীর এখনো মনে আছে বিএনপি- জামাত জোট সরকার আমলে তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অজ্ঞান উক্তির কথা! পিতার কোলে এক শিশুর গুলিতে নিহত হওয়ার ঘটনায় ওই মন্ত্রীর মন্তব্য ছিল ‘আল্লাহর মাল আল্লায় নিয়ে গেছে।’ নির্বোধ এই বক্তব্য ওই সময় দেশবাসীর কাছে খুব দ্রুত মুখরোচক উক্তিতে পরিণত হয়। এখনো অনেক সময় ওই উক্তির উদ্ধৃতি দিয়ে কথা বলা হয়। এবার একই ধরনের উক্তি করেছেন একজন চিকিৎসক। তিনি চিকিৎসা বিজ্ঞানে লেখাপড়া করে, ডাক্তারি সনদ নিয়ে, চাকরি করে ওই একই ধরনের মন্তব্য করেছেন।
সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী চুয়াডাঙ্গার দর্শনার মডার্ন ক্লিনিকে আয়া দ্বারা সন্তান প্রসব করাতে গিয়ে মৃত্যু হয়েছে এক নবজাতকের। কিন্তু এ ঘটনায় দায় এড়িয়ে গিয়েছেন ক্লিনিকের চিকিৎসকরা। ক্লিনিকের চিকিৎসক ডা. তারিকুল আলমের ভাষ্য, ‘নবজাতকের ভাগ্যে এভাবেই মৃত্যু ছিল, তাই হয়েছে। আল্লাহর মাল আল্লাহ নেবেন তাতে বান্দার কী করার আছে। দুনিয়ায় যতটুকু হায়াত ছিল ততটুকুই সে জীবন পেয়েছে।’ চিকিৎসকের এ ধরনের মন্তব্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।
অবক্ষয় ব্যক্তির মধ্যে কতখানি ত্বরান্বিত হলে নিজের দায় এড়াতে গিয়ে এমন নির্বোধের মত উক্তি করতে পারে! মনুষ্যত্বের কী ভয়ঙ্কর বিপর্যয়। ডাক্তার নামের এই ‘কসাই’ এর কাছে রোগির জীবনের মূল্য যে নেহাতই তুচ্ছ তার বক্তব্যের মধ্যেই তা প্রকাশ পেয়েছে। এ ধরনের ডাক্তার স্বার্থে রোগী হত্যা করতেও কার্পণ্য করবে না। এরা খুব সহজেই দুনীর্তি দ্বারা প্রভাবিত হয়ে মানুষের জীবন নিয়ে খেলতে পারে।
মর্মান্তিক ওই ঘটনা তদন্ত করে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আমরা দাবি জানাচ্ছি। একই সাথে ওই ডাক্তার যিনি নির্বোধের মত মন্তব্য করেছে সে বিষয়টিও থতিয়ে দেখা প্রয়োজন। ওই ধরনের মন্তব্যের জন্য তার ডাক্তারি পেশার অধিকারই খর্ব করা সমীচিন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ