ঢাকা আন্ডারডগ! তাদের নিয়ে ভাবছে না কুমিল্লা!

আপডেট: ডিসেম্বর ৮, ২০১৭, ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) গত আসর শেষ হওয়ার পর থেকেই দল গোছানোর কাজে লেগে ছিল ২টি দল। আর সে দলদুটি- কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ও ঢাকা ডায়নামাইটস। আগে থেকে দল গড়ায় আসরের সেরা দলদুটিই গড়তে পেরেছে তারা। আর তার সুফলটা পেয়েছে হাতেনাতেই। টুর্নামেন্টের সেরা দুইয়ে আছে তারা। খেলবে প্রথম কোয়ালিফায়ার। হারলেও সমস্যা খুব নেই। ফাইনালে খেলার আরও একটি সুযোগ থাকছে। তবে দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে চায় না কোন দলই। আজ শুক্রবারই ফাইনালের টিকেট কাটতে চায় দুই দলই। সে লক্ষ্যে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৭টায় মুখোমুখি হচ্ছে গত দুই আসরের দুই চ্যাম্পিয়ন দল।
টুর্নামেন্টের শুরুটা অবশ্য দুদলই করেছিল হার দিয়ে। এরপর দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় তারা। বিপিএলের এই পঞ্চম আসরে সবচেয়ে ধারাবাহিক ক্রিকেট খেলেছে তামিম ইকবালের কুমিল্লা। স্থানীয় ও বিদেশি ক্রিকেটারদের দারুণ সমন্বয়ে বেশ ভারসাম্যপূর্ণ দল তাদের দলটি। বিদেশি সকল খেলোয়াড়ই পারফর্ম করছেন। মূলত দেশি খেলোয়াড়রা পারফর্ম করায় এগিয়ে আছে দলটি। অধিনায়ক তামিমের সাথে টপ অর্ডারে দারুণ খেলছেন ইমরুল কায়েস ও লিটন কুমার দাস। মিডল অর্ডারে শোয়েব মালিক, মারলন স্যামুয়েলস, ডোয়াইন ব্রাভোরা চমৎকার ছন্দেই আছেন। বল হাতেও দুর্দান্ত দলটি।
তবে পিছিয়ে নেই ঢাকাও। ক্যারিবিয়ান নতুন ঝড় ইভিন লুইস প্রায় প্রতি ম্যাচেই শুরুতে বড় কিছুর ভিত করে দিয়ে যাচ্ছেন। দারুণ খেলছেন জাতীয় দলের সতীর্থ কাইরন পোলার্ডও। এছাড়া দুই তরুণ বিদেশি জো ডেনলি ও ক্যামেরন ডেলপোর্ট খেলছেন দুর্দান্ত। শুরু থেকেই দুর্দান্ত বোলিং করছেন আফ্রিদি। তবে স্থানীয় ক্রিকেটাররা নিজেদের সেরাটা দিতে ব্যর্থ হচ্ছেন। বল হাতে আবু হায়দার রনি ছাড়া কেউ ধারাবাহিক নন। যদিও শেষ ম্যাচে রংপুরের বিপক্ষে ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এছাড়াও দলটির মূল সমস্যা ধারাবাহিকতায়।
প্রথম কোয়ালিফায়ারে মাঠে নামার আগে পিছিয়ে থেকেই মাঠে নামবে গেলবারের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা। কারণ গ্রুপ পর্বের দুটি ম্যাচেই হেরেছে দলটি। তাই নিজেদের আন্ডারডগই মনে করছেন দলের কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন, ‘প্রথম কথা হচ্ছে কাল আমরা আন্ডারডগ হিসেবে খেলব। কুমিল্লা আমাদের সাথে দুইটাই জিতেছে। দারুণ খেলছে। আমরাও ভাল খেলছি, তবে আমাদের ধারাবাহিকতার একটু অভাব ছিল।’ তবে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে রংপুরকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাসটা ফিরে পেয়েছে তারা, ‘এই সংস্করণে যেটা হয় যে সঠিক সময়ে মোমেন্টাম ধরে রাখা। আমার মনে হয় সেই হিসাবে আমরা কালকে একটা দারুণ ম্যাচ জিতছি অল্প রান করেও। আমাদের বোলিং অসাধারণ ছিল, সাকিব অধিনায়কের ভূমিকা দারুণভাবে পালন করেছে। কাল খুব গুরুত্বপূর্ণ খেলা, টাইট গেম, দারুণ খেলা হবে আশা করি।’
অপরদিকে অনেকটা নির্ভার ক্রিকেট খেলতে চায় কুমিল্লা। প্রতিপক্ষ নিয়েও তারা চিন্তিত নয়। শুধু নিজেদের সেরাটা খেলার দিকেই নজর দিচ্ছেন বলে জানান দলের প্রধান কোচ মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন, ‘কাল আমাদের ঢাকার সাথে খেলা। প্রতিপক্ষ নিয়ে চিন্তাও করি না। সবাই শক্ত প্রতিপক্ষ। আলাদা করে দেখার বিষয় না। আমরা আগে যে পরিকল্পনা করেছি, সেই একই মন মানসিকতা নিয়ে যাচ্ছি। আমরা প্রতিটা ম্যাচ খেলি এই ভেবে যে, একটা ম্যাচ হেরে গেলেই আমরা টুর্নামেন্ট থেকে আউট হয়ে যাব। এই মন মানসিকতায় থাকতে পারলে আমাদের জন্য ভাল। এভাবে পরিকল্পনা করেই আমরা এগিয়ে যাবো।’
এদিকে কোয়ালিফায়ারের এই হাই ভোল্টেজ ম্যাচে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে টস। কারণ শুক্রবার হওয়ায় ম্যাচটি শুরু হবে অন্যান্য দিনের চেয়ে এক ঘণ্টা পর। সেক্ষেত্রে শিশির সমস্যা বড় কারণ হয়ে দেখা দিতে পারে। বিশেষ করে সমস্যায় পড়তে পারেন স্পিনাররা। তবে সমস্যা যাই হোক দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাই আশা করছে দুটি দল।