তানোরে জমি জবরদখলের অভিযোগ

আপডেট: জানুয়ারি ৪, ২০১৮, ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ

তানোর প্রতিনিধি


রাজশাহীর তানোরে শাহাজান আলী নামের একজনের বিরুদ্ধে মমিনুল ইসলাম মুন নামের এক ব্যক্তি তার সম্পত্তি জবরদখলের অভিযোগ করেছেন। গত মঙ্গলবার এ ঘটনায় মুন বাদী হয়ে শাহাজান আলীকে বিবাদী করে তানোর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মুনের বাবা জানমোহাম্মদের নামে তানোরের বাধাইড় ইউপির মৌজা শিবরামপুর-জেল নম্বর ৫৫ ও ২৬৪ নম্বর দাগে মোট ২৭ শতক সম্পত্তি রয়েছে। এদিকে নামজারি ও নিয়মিত সরকারি খাজনা (ভূমি উন্নয়ন কর) পরিশোধ করে তারা যথারীতি প্রায় দুই যুগ ধরে ওই সম্পত্তি শান্তিপূর্ণভাবে ভোগদখল করে আসছেন। সম্প্রতি শিবরামপুর গ্রামের বাসিন্দা মৃত জবেদ আলীর ছেলে শাহ্জাহান আলী ওই সম্পত্তির প্রায় চার শতাংশ জোরপূর্বক জবরদখল করেছে। এসময় মমিনের পরিবারের সদস্যরা বাধা দিতে গেলে শাহজাহান তার লোকজন নিয়ে দেশিয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মমিন ও তার বাবাকে হত্যার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে নানাভাবে ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করছে বলেও অভিযোগে বলা হয়েছে।
এদিকে সম্পত্তি নিজের দাবি করে জবরদখল করেও সম্পত্তির বিষয়ে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখাতে ব্যর্থ হয়েছে শাহজাহান। ওই সম্পত্তি জবরদখল নিয়ে বিবাদমান দুটি পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক গ্রামবাসী জানান, হাবু চেয়ারম্যানের ভাগ্নের কাছে থেকে ত্রুটিপূর্ণ কাগজের পাঁচ বিঘা জমি কম দামে কিনে শাহজাহান আলী প্রায় ৮ বিঘা জমি জোরপূর্বক দখল করেছে। এসব জমি পরিমাপ করা হলেই সেটা প্রমাণ হবে। তারা ওই জমি পরিমাপের দাবি করেছেন।
এদিকে গত বছরের ২১ ডিসেম্বর জমি পরিমাপ করতে গিয়ে দুইজন জমি মাপককে (আমিন) শাহজাহানের লোকজন বেধড়ক পিটিয়েছে। এছাড়াও শাহজাহান সরকারি বরাদ্দের টিউবয়েল নিজের বাড়িতে স্থাপন ও শিবরামপুর ওয়াক্তিয়া মসজিদ (ভুয়া) দেখিয়ে দুই মেট্রিক টন খাদ্যশস্য আত্মসাত করেছেন বলেও অভিযোগ স্থানীয়দের। তারা জানান, ক্ষমতাসীন দলের এক যুবলীগ নেতার নেপথ্যে মদদে শাহজাহানের চরম দৌরাত্ম্যে গ্রামবাসী অতীষ্ঠ হয়ে উঠেছে। কিন্তু ক্ষমতাসীন দলের ওই প্রভাবশালী নেতার ভয়ে তারা কোনো প্রতিবাদ করছে পারছে না।
অভিযোগ অস্বীকার করে শাহজাহান আলী বলেন, আমার ক্রয়কৃত জমি আমি দখল করেছি। আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ ছড়ানো হচ্ছে।
এ বিষয়ে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল ইসলাম জানান, অভিযোগ পাওয়া গেছে। আগামী বৃহ¯পতিবার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে উভয় পক্ষকে থানায় ডাকা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ