তানোরে শিব নদীর বুকে সবুজের সমারোহ

আপডেট: মার্চ ১৫, ২০১৮, ১:০০ পূর্বাহ্ণ

লুৎফর রহমান, তানোর


রাজশাহীর তানোরে শিব নদীর বুকে দেখা দিয়েছে সবুজ ধানের সমারোহ। আর সেই বোরো ধান পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন চাষিরা। উপজেলায় কৃষকদের সমতল জমিতে বোর ধান চাষাবাদ করলে প্রতি বিঘায় খরচ হয় ছয় থেকে সাত হাজার টাকা। আর নদীর বুকে বোরো ধান চাষাবাদে খরচ হয় মাত্র তিন থেকে চার হাজার টাকা। তাই শুকনো মৌসুমে নদীর বুকে বোরা চাষে ঝুঁকেছেন চাষিরা।
স্থানীয় কৃষকরা জানায়, এ উপজেলা উপর দিয়ে বয়ে গেছে শিবনদী। চলতি মৌসুমে শিবনদীর পানি শুকিয়ে জেগে উঠা নিচু জমিতে কৃষকরা বোরো চাষবাদ করে। আর তলায় জমে থাকা পানি, অগভীর নলকূপ ও উঁচু সমতলে গভীর নলকূপ দিয়ে তাদের সেচ কাজ চলে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, ধান রোপণ পরবর্তী পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছে এখানকার কৃষকরা। এখন নদীতে ধানের সবুজ চারাগাছ বাতাসে দোল খাচ্ছে।
কামারগাঁ ইউপির চেয়ারম্যান ও শিবনদীর বুকে ধানচাষি মোসলেম উদ্দিন জানান, বর্ষা মৌসুমে পনির নিচে তলিয়ে থাকা জমিগুলো শুকনো মৌসুমে জেগে উঠে। আর তলিয়ে থাকা জমিগুলোতে সমতলের চেয়ে অনেক বেশি বোরো ধান উৎপাদন হয়। এতে খরচও কম হয়।
উপজেলা কৃষি অধিদফতর জানায়, উপজেলার তানোর পৌর এলাকাসহ কমারগাঁ ইউনিয়ন ও চাঁন্দুড়িয়া ইউনিয়নের ধার দিয়ে বয়ে গেছে শিবনদী। চলতি মৌসুমে শিবনদীর বুকে এক হাজার ৩৯ হেক্টর জমিতে বোরো চাষবাদ করা হয়েছে।
এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার শরিফুল ইসলাম জানান, নদীর তীরে চাষিরা সাধারণত উচু জমিতে ধান চাষাবাদকারী চাষিদের থেকে কম খরচে ধান উৎপাদন করতে পারে। তবে তাদের ভয়ও রয়েছে। যে কোন সময় বেশি পানি হলে ডুবে যেতে পারে বলে জানান তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Don`t copy text!