তাড়াশ উপজেলা চেয়ারম্যানের উপর হামলা মামলায় ভাইস চেয়ারম্যান গ্রেফতার

আপডেট: অক্টোবর ২১, ২০১৭, ১২:২২ পূর্বাহ্ণ

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি


সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হকের উপর হামলা মামলায় এজাহারভুক্ত আসামি উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আলী বিদ্যুৎকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
গতকাল শুক্রবার দুপুর একটার দিকে তাড়াশ বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ফরহাদ আলী উপজেলা সদরের বাসিন্দা ও স্থানীয় সাংসদ আমজাদ হোসেন মিলনের ঘনিষ্ঠজন।
এদিকে ফরহাদ আলী বিদ্যুৎকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে তাঁর সমর্থিত নেতাকর্মীরা তাড়াশ সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও মামলার বাদী বাবুল সেখের অফিসে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
তাড়াশ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মঞ্জুর রহমান জানান, উপজেলা চেয়ারম্যানের উপর হামলা মামলায় আদালত থেকে ফরহাদ আলীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হওয়ায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বিকেলে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ২৯ অক্টোবর রোববার দুপুরে তাড়াশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে মাসিক সমন্বয় সভায় সংসদ আমজাদ হোসেন মিলনের বিরুদ্ধে ২-১ জন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বক্তব্য দেন। এসময় উভয়পক্ষের মধ্যে বাকবিত-া শুরু হলে এক পর্যায়ে সাংসদ সভা ত্যাগ করেন। এরপর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল হক নিজ কার্যালয়ে গিয়ে ইউপি চেয়ারম্যানদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। এসময় উপজেলা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে তাকে মাথায় রক্তাক্ত জখম করা হয়। এ ঘটনায় গত সোমবার বিকালে তাড়াশ সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাবুল শেখ বাদী হয়ে থানায় একটি অভিযোগ করেন। পরবর্তীতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে মঙ্গলবার তা মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হয়।
এ মামলায় সাংসদ আমজাদ হোসেন মিলনকে হুকুমদাতা ও ইন্ধনদাতা হিসেবে প্রধান আসামি করা হয়েছে। তাছাড়া তার দুই ছেলে জর্জিয়াস মিলন রুবেল ও জাকির হোসেন জুয়েল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফরহাদ আলীসহ ১৪ জনকে আসামি করা হয়েছে।