দিনাজপুরে উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ১১ ইউপি চেয়ারম্যানের অনাস্থা

আপডেট: অক্টোবর ১৫, ২০১৭, ১২:২৭ পূর্বাহ্ণ

দিনাজপুর প্রতিনিধি


বীরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ১১ জন ইউপি চেয়ারম্যান অনাস্থা এনে রংপুর বিভাগীয় কমিশনারের কাছে লিখিত আবেদন করেছেন। গতকাল শনিবার দুপুরে দিনাজপুর প্রেসক্লাবে বীরগঞ্জ উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে সাতটি অভিযোগ এনে অনাস্থা প্রস্তাব রংপুর বিভাগীয় কমিশনারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান।
সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয় যে, ২০ আগস্ট রোববার সকাল ১১টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত বীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে দিনাজপুর ১ আসনের সাংসদ মনোরঞ্জনশীল গোপালের বিরুদ্ধে বৈঠক করে উপজেলা পরিষদ নীতিমালার পরিপন্থী কার্যকলাপ এবং গালিগালাজ, অশ্লীল, অসভ্য ভাষা প্রয়োগ করেন। এছাড়াও তিনি ভিজিএফ, ভিজিডি ও মাতৃভাতা প্রদানের ক্ষেত্রে তার প্রেরিত তালিকা অনুযায়ী আওয়ামী লীগ দলীয় দরিদ্র লোকদের কার্ড প্রদানের নির্দেশনা দিয়ে অনিয়ম করেছেন। উপজেলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি আতাহারুল ইসলাম চৌধুরী হেলালকে মোবাইল ফোনে অকথ্যভাবে গালিগালাজ করে লাশ কয়েক টুকরা করে নদীতে ভাসিয়ে দেয়ার হুমকি দিয়েছেন।
সংবাদ সম্মেলনে বীরগঞ্জের ১নম্বর শিবরামপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনক চন্দ্র অধিকারী, ৩নম্বর শতগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কেএম কুতুব উদ্দিন, ৪নম্বর পাল্টাপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান তছলিমুল আলম, ৫নম্বর সুজালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মহেশ চন্দ্র রায়, ৬নম্বর নিজপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুুল খালেক সরকার, ৭নম্বর মাহানপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোপাল চন্দ্র দেব শর্মা, ৮নম্বর ভোগনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বদিউজ্জামান পান্না, ৯নম্বর সাতোর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম, ১০নম্বর মোহনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মজিদুল হক ও ১১ নম্বর মরিচা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতাহারুল ইসলাম চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ