দিবালা টিকে গেলেও বাদ পড়ে যাবেন ইকার্দি?

আপডেট: মে ১৬, ২০১৮, ১২:৪২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


মাউরো ইকার্দি খবরটা শুনে খুশি হবেন না কষ্ট পাবেন কে জানে। বিশ্বকাপ খেলা যেকোনো ফুটবলারের জন্য স্বপ্ন। গত বিশ্বকাপ খেলা হয় নি ২০১৩ সালে অভিষেক হয়েও। এবার প্রাথমিক দলে জায়গা করে নিয়েছেন। যদিও ৩৫ জনের দলটা ছোট হতেই সেই তালিকায় নিজেকে নাও খুঁজে পেতে পারেন। অথচ ইতালির ইন্টার মিলানের অধিনায়ক আছেন দারুণ ফর্মে। তবু ২০১৮ ফুটবল বিশ্বকাপ হয়তো দর্শক হয়ে দেখতে হবে তাঁকে।
প্রাথমিক দলে আক্রমণভাগে সাতজনকে রেখেছেন আর্জেন্টিনা কোচ হোর্হে সাম্পাওলি। ইকার্দি ছাড়াও তাতে আছেন পাওলো দিবালা, গঞ্জালো হিগুয়েইন, সার্জিও আগুয়েরো, লতারো মার্টিনেজ, দিয়েগো পেরোত্তি। অবশ্যই আছেন লিওনেল মেসি। ইকার্দি ছাড়াও চূড়ান্ত দলে জায়গা করে নেওয়া অনিশ্চিত আর্জেন্টিনার নতুন তারকা দিবালারও।
অভিষেকের পর গত প্রায় ৫ বছরে আর্জেন্টিনার হয়ে চারটি ম্যাচ খেলেছেন। ইকার্দির ওপর আস্থা রাখতে পারেননি কোনো কোচই। এক সময় ধারণা করা হতো, কারণটা নৈতিক। জাতীয় দলের আরেক সতীর্থের স্ত্রীকে বিয়ে করেছেন বলে মেসিই নাকি তাঁকে চান না। তবে সাম্পাওলি বলেছেন, আর্জেন্টিনার খেলার ধরনের সঙ্গে ইকার্দি মানিয়ে নিতে পারেন না। এ কারণে সিরি তাতে ২৮ গোল করেও দর্শক হয়ে থাকতে হতে পারে তাঁকে।
জুভেন্টাস তারকা দিবালারও চূড়ান্ত দলে জায়গা না পাওয়ার কারণ হতে পারে মেসি ও তাঁর খেলার ধরন ও পজিশন একই রকম। তবে মেসিকে গঞ্জালো হিগুয়েইনের ঠিক পেছনে খেলানোর পরিকল্পনা থাকলে ডান পাশের জায়গাটা দিবালা পেয়েও যেতে পারেন। আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যম এখনো আশা দেখাচ্ছে তাঁকে।
৩৫ জনের দলে জায়গা করে নিতে পারেননি কার্লোস তেভেজ, ক্রানেভিতার ও অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের অ্যাঙ্গেল কোরেয়া। অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া আছেন মিডফিল্ডারের তালিকায়। সেখানে অবশ্য জায়গা পাননি তাঁর পিএসজি সতীর্থ হাভিয়ের পাস্তোরে। চোটে থাকলেও জায়গা করে নিয়েছে লুকাস বিলিয়া। আগুয়েরোও চোটে আছেন। তবে সেরে উঠবেন বিশ্বকাপের আগেই।
কয়েক দিনের মধ্যেই সাম্পাওলি ২৩ জনের চূড়ান্ত দল ঘোষণা করে দেবেন। যদিও ব্রাজিল এরই মধ্যে ঘোষণা করেছে তাদের চূড়ান্ত দল।
গোলরক্ষক: সার্জিও রোমেরো, নাহুয়েল গুজমান, উইলি কাবায়েরো, ফ্রাঙ্কো আরমানি।
ডিফেন্ডার: গ্যাব্রিয়েল মারকাদো, নিকোলাস থামেনি, ফেদেরিকো ফােিজা, নিকোলাস তাগলিয়াফিকো, মার্কোস রোহো, মার্কোস একুইনা, রামিরো ফিউনেস মরি, ক্রিসতিয়ান আনসালদি, এদুয়ার্দো সাওভিও, গারমান পেজ্জেয়া।
মিডফিল্ডার: হাভিয়ের মাসচেরানো, অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া, এভার বানেগা, লুকাস বিলিয়া, ম্যানুয়েল লানজিনি, জিও লো চেলসো, রিকার্দো সেঞ্চুরিয়ন, গুইদো পিজারো, লিয়ান্দ্রো পারেদেস, ম্যাক্সিমিলিয়ানো মেজা, এনজো পেরেজ, পাবলো পেরেজ, রদ্রিগো বাত্তালিয়া।
ফরোয়ার্ড: লিওনেল মেসি, সার্জিও আগুয়েরো, গঞ্জালো হিগুয়েইন, পাওলো দিবালা, মাউরো ইকার্দি, ক্রিস্তিয়ান পাভোন, লতারো মার্টিনেজ, ডিয়েগো পেরেত্তি।