দেড় লাখ দুস্থ পাবেন ভিজিএফ চাল সঠিক ও যোগ্যরাই যাতে চাল পায়

আপডেট: আগস্ট ৫, ২০১৯, ১২:০৭ পূর্বাহ্ণ

ঈদ-উল-আজহা উপলক্ষে সরকারের ভালনারেবল গ্রুপ ফিডিং বা ভিজিএফ চাল পাচ্ছেন রাজশাহীর প্রায় দেড় লাখ পরিবার। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের মানবিক সহায়তা ও সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় ১৫ কেজি করে চাল পাবে পরিবারগুলো। এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন দৈনিক সোনার দেশ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।
প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী রাজশাহীর ৯টি উপজেলায় মোট উপকারভোগীর সংখ্যা ১ লাখ ৪৯ হাজার ৫৭ জন। তাদের জন্য বরাদ্দ চালের পরিমাণ ১ হাজার ৫৭৫ দশমিক ৩৫৬ মেট্রিক টন। এরই মধ্যে এসব চাল উপজেলা পর্যায়ে পাঠানো হয়েছে। গত সপ্তাহ থেকে বিভিন্ন পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ থেকে চাল বিতরণ শুরুও হয়েছে। ঈদের আগেই চাল বিতরণ কার্যক্রম শেষ হবে।
সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, উপকারভোগী নির্বাচনের ক্ষেত্রে বরাবরের মতো এবারও নারীদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে। খেয়াল করা হয়েছে যেনো কোনো পরিবারের একাধিক ব্যক্তি তালিকায় অন্তর্ভুক্ত না হয়। ফলে ঈদে কেবল দুস্থরাই চাল পাচ্ছেন।
বরাদ্দপত্রের শর্ত অনুযায়ী, ইউনিয়ন ও পৌরসভাগুলোকে ঈদের আগেই চাল বিতরণ কার্যক্রম শেষ করতে হবে। সঠিকভাবে চাল বিতরণ শেষ করতে সবাইকে নির্দেশনা দেয়া আছে। কোথাও কোনো অনিয়ম হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।
দরিদ্র-দুস্থ মানুষদের জন্য এটি সরকারের একটি গুরুত্বপর্ণ প্রকল্প। ঈদে যাতে করে ওইসব পরিবারের খাদ্য নিরাপত্তায় কোনো ধরনের সমস্যা না হয়- সে বিষয়টি এই চাল বিতরেণের একটি উদ্দেশ্য। বলার অপেক্ষা রাখে না, ওই পরিবারগুলো দারুণভাবে উপকৃত হবে। যদিও বলা হচ্ছে সঠিকভাবেই উপকারভোগি নির্বাচন করা হয়েছে। কিন্তু অতীত অভিজ্ঞতা সর্বক্ষেত্রে সন্তোষজনক নয়। সবলরা প্রভাব খাটিয়ে দুস্থদের তালিকায় নিজেদের নাম তালিকাভুক্ত করে সুবিধা নিয়েছে। এই পরিস্থিতি কোনোভাবেই কাম্য নয়। অতীতে আরেকটি অভিযোগ ছিল- তা হলো ওজনে কম দেয়া। নানা অজুহাতে ছল-চাতরি করে দুস্থদের চাল ওজনে কম দেয়া হয়েছে। আমরা প্রত্যাশা করবো এবার যাতে চাল বিতরণে কোনো ধরনের অভিযোগ যাতে না উঠে। দুস্থদের জন্য চাল- দুস্থরা পাবে এবং সঠিক ওজনে পাবে সেটাই যেন সঠিক হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ