‘ধর্মনিরপেক্ষ’ দুর্গাপূজা ঘিরে কলকাতায় বিতর্ক

আপডেট: অক্টোবর ৭, ২০১৯, ১:১৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


এবারের দুর্গাপূজায় ‘ধর্মনিরপেক্ষতা’-কে প্রতিপাদ্য করে সমালোচনার মুখে পড়েছে কলকাতার বেলেঘাটা ৩৩ পল্লীর পুজো। সমালোচনাকারীদের অভিযোগ, পূজার মধ্যেই প্যান্ডেলে আজানের সুর বাজিয়ে ধর্ম নিয়ে এক ভিন্ন বাতাবরণ তৈরি করা হয়েছে। বেলেঘাটার এই পূজাকে ঘিরে সমালোচনার ঝড় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও। আর ইতোমধ্যেই এই পূজার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেছেন আইনজীবী শান্তনু সিংহ। ৩৩ পল্লী ক্লাবের কর্মকর্তা, ক্লাব সম্পাদক মিলিয়ে প্রায় ১০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন এই আইনজীবী। তবে আয়োজকরা দাবি করেছেন, পূজার প্যান্ডেলে আজান বাজানোর অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভ্রান্ত।
বেলেঘাটা ৩৩ পল্লীর দুর্গাপুজোর থিম। পূজামণ্ডপ সাজানো হয়েছে হিন্দু ছাড়াও নানা ধর্মের রীতিনীতি এবং ছবির নিদর্শনের মাধ্যমে। দুর্গা প্রতিমার হাতে দেওয়া হয়নি কোনও অস্ত্র। মণ্ডপের শুরুতেই দেখা যাচ্ছে একটি বড় ছাতা। আর সেই ছাতার তলায় রয়েছে মন্দির-মসজিদ-গির্জা। দুর্গাপূজার এই প্রতিপাদ্য যে শিল্পীর মাথা থেকে এসেছে তিনি রিন্টু দাস। তার ভাষায়, ‘আমাদের প্রতিপাদ্যের বিষয়বস্তু হচ্ছে, আমরা সবাই এক, কেউ একা নই। সাম্প্রদায়িকতা ভুলে সবাই যাতে সম্প্রীতির পথে চলি সেই বার্তাই দেওয়া হয়েছে। মায়ের হাতে অস্ত্র নেই। সেটা যুদ্ধ ভুলে শান্তির বার্তা।’
পুলিশকে লেখা চিঠিতে শান্তনু সিংহ বলেছেন, ‘এই ব্যক্তিরা দুর্গাপূজার প্যান্ডেলে আজান বাজিয়ে স্পষ্টভাবেই পশ্চিমবঙ্গের শান্তি বিঘ্নিত করার পরিকল্পনা করছেন। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের কাছ থেকে আমার কাছে এই ভিডিওটি আসে। এই ভিডিওটিতে স্পষ্টতই দেখা যাচ্ছে যে, দুর্গাপূজা প্যান্ডেলে আজান বাজিয়ে সমাজের নিয়মের বিরুদ্ধে গিয়ে হিন্দুদের ধর্মীয় বিশ্বাস এবং অনুভূতিকে আঘাত করা হচ্ছে। সমগ্র ঘটনায় এই ক্লাবের কর্মকর্তারাই দায়ী।’
অবশ্য পুরো ঘটনাটি নিয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে এখনও কোনও মন্তব্য করা হয়নি। সূত্রের বরাত দিয়ে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানায়, পুলিশের সাইবার সেলের পক্ষ থেকে এই প্যান্ডেলকে ঘিরে করা যাবতীয় ভিডিও পোস্টের উপর নজর রাখা হচ্ছে।
পূজা উদ্যোক্তাদের দাবি, তাদের এবছরের থিম ‘আমরা এক। একা নই’। সব ধর্মের মধ্যে বিভেদ মিটিয়ে শান্তি ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যেই ছিল এবারের পূজার ভাবনা।
বেলেঘাটা ৩৩ পল্লীর সম্পাদক পরিমল দে বলেন, ‘এটি নিয়ে অকারণে রাজনীতি করা হচ্ছে। কলকাতায় দুর্গাপূজার থিমের ভাবনা এসেছিল সামাজিক বার্তা দেওয়ার উদ্দেশ্যেই। আমরা আমাদের থিম ‘আমরা এক, একা নই’-এ গির্জা, মন্দির, মসজিদের প্রতীকও ব্যবহার করেছি এটা বোঝাতে, যে আমরা সবাই এক। আমাদের মূল উদ্দেশ্যই ছিল ধর্মের উপরে মানবতাকে প্রতিষ্ঠা করা।’
ওই মণ্ডপে দর্শনার্থীদের পূজাটির প্রতিপাদ্য সম্পর্কে অবগত করতে একটি ভিডিও দেখানো হচ্ছে। এই ভিডিওতেই দুর্গাপূজায় আজান বাজানোর অভিযোগ ওঠেছে। এ বিষয়ে পরিমল দে বলেন, ‘কিছু মানুষ হিন্দু, খ্রিস্টানদের বার্তা স্বচ্ছন্দে উপেক্ষা করেন, কেবল উর্দুতে দেওয়া বার্তা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করছেন। দুর্গাপূজার প্যান্ডেলে আজান বাজানো হচ্ছে বলে যা বলা হচ্ছে, তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভ্রান্ত।’
এই ঘটনা নিয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘এখন পর্যন্ত কারো বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়নি।’
তথ্যসূত্র: বাংলাট্রিবিউন